টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বাঁশের সাকোতে ঝুঁকিপূর্ণ পথচলা

Joldas Para

ইমাম খাইর, কক্সবাজার ব্যুরো:

চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীরছরার জলদাসপাড়া সংযোগ সড়ক (মহেশখালী-মেদাখাল সেতু) ছিঁড়ে দেড়হাজার মানুষ ঝুঁকি নিয়ে পথ চলছে। এই সড়কটি এলাকাবাসীর মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। আপাতত বাঁশের সাকো দিয়ে হাঁটাচলার ব্যবস্থা করলেও বড় ধরণের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছে স্থানীয়রা।

ইউনিয়নের উত্তর ফুলছড়ি এলাকার দেড় হাজার মানুষের একমাত্র যোগাযোগের মাধ্যম জলদাসপাড়া সংযোগ সড়ক। তাছাড়া সড়কটি ‘মহেশখালী-মেদাখাল সংযোগ সড়ক’ হিসাবেও পরিচিত। গত ২৩ জুন থেকে ২৮ জুন পর্যন্ত ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে এটি পানিতে বিলীন হয়ে যায়। এখনো সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ নেয়নি কর্তৃপক্ষ।

ফলে ওই এলাকার দেড় হাজার মানুষ জীবন ঝুঁকি নিয়ে নিয়মিত পথ চলছে।

স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য নুরুল আমিন জানান, গত মাসের শেষের দিকে সপ্তাহব্যাপী টানা বর্ষণে সড়কটির কিছু অংশ বিলীন হয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের চেষ্টায় বাঁশের সাকো দেয়া হয়। তাও এখন ঝুকিপূর্ণ হয়ে ওঠেছে। স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থীরা চরম ঝুঁকি নিয়ে সাকো পার হয়। পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয় নিয়মিত।

একই কথা জানালেন নাজেম উদ্দিন নামের স্থানীয় আরেক বাসিন্দা। জনস্বার্থ বিবেচনায় তিনি সড়কটি দ্রুত সংস্কার করার দাবী জানান।

পানি উন্নয়ন বোর্ড কক্সবাজার সার্কেল কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সবিবুর রহমান জানান, বন্যায় কক্সবাজার জেলায় ৬৬ কিলোমিটারের বেশী বেড়বিাঁধ, ৪১টি স্লুইচ গেইট এবং প্রায় ৩ কিলোমিটার নদীর তীর প্রতিরক্ষা কাজের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এ কাজের জন্য পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের নিকট ৫৮ কোটি ৯৩ লাখ টাকা বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। তিনি জানান, বরাদ্দ পেলেও এখন বর্ষা মৌসুম হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ সংস্কার সম্ভব নয়।

এরপরও জরুরী ভিত্তিতে বরাদ্দ পাওয়া গেলে অতি জরুরী কাজগুলো সম্পন্ন করা হবে।

এদিকে বিলীন হওয়া সড়কটি ৩ জুলাই শুক্রবার পরিদর্শন করেছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব ডা. মীর আহমদ হেলালীর নেতৃত্বে একটি টীম।

এ সময় সাথে ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যাপক শফিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক বেলাল আজাদ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাঈদ মু. শাহজালাল, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতা হুমায়ুন কবির, নুরুল ইসলাম প্রমুখ। তারা সড়টির ভাঙা ঘুরে দেখেন এবং এলাকাবাসীর সাথে কথা বলেন।

পরিদর্শনকালে তারা সড়কটি দ্রুত সংস্কারে আশ্বস্ত করেন দুর্ভেোগে পড়া মানুষগুলোকে। উপজেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব ডা. মীর আহমদ হেলালী জানান, উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় আমরা সড়কটি সংস্কারের পরিকল্পনা নিয়েছি।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে কথা হয়েছে। আশা করছি, দ্রত কাজ শুরু হবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত