টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ঈদ বাজার: মিরসরাইয়ে ‘কিরণমালা’তে মজেছে তরুণীরা

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই  প্রতিনিধি 

Mirsarai-Eid-Bazarচট্টগ্রাম, ০২ জুলাই (সিটিজি টাইমস): মুসলিম সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদ ঘনিয়ে আসছে। এই উৎসব ঘিরে মিরসরাই উপজেলার প্রতিটি অভিজাত বিপনী কেন্দ্রে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে সাজানো হয়েছে আকর্ষনীয় সাজে। ক্রেতাদের পদভারে জমে উঠেছে মিরসরাইয়ের ঈদ বাজার। ১০ রমজান পর্যন্ত তেমন কেনাকাটা না করলেও ১১ রমজান থেকে ঈদের কেনাকাটা শুরু করেছেন ক্রোতারা। মার্কেটগুলোতে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড় চোখে পড়ার মত। অভিজাত মাকের্ট সমূহের দোকানীরা উঠিয়ে বাহারী সব ধরণের পোষাক ও পন্য। বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের চাহিদা বিবেচনা মাথায় রেখে দোকানে সাজিয়ে রাখা হয়েছে নতুন নতুন ডিজাইনের দেশি বিদেশি কাপড় ছোপড়। সকাল ৮টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত চলছে জমজমাট বিকিকিনি। ধম ফেলানোর ফুসরত নেই ব্যবসায়ীদের। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে উপজেলার বেশ কয়েকটি মার্কেটে আয়োজন করা হয়েছে লাকি কূপনের।

বারইয়ারহাটের সেঞ্চুরী শপিং কমপ্লেক্স, আল আমিন শপিং কমপ্লেক্স, জমিদার মার্কেট, জামালপুর মার্কেট, মসজিদ গলির লাকী ক্লথ, মিঠাছড়ার আল-আমিন ক্লথ, দরবার ক্লথ ও জোরারগঞ্জ, আবুতোরাব, নিজামপুর কলেজ, মিরসরাই সদরের কাশেম শপিং সেন্টার, টুকুমিয়া মার্কেট, খায়েক শপিং কমপ্লেক্স সহ দোকানগুলোতে ক্রেতাদের ভিড়।

বারইয়ারহাট লাকী ক্লথ এন্ড গার্মেন্টস‘র সত্ত্বাধিকারী মো. শামসুদ্দীন বলেন, এবারের রমজানে বিক্রির জন্য ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে থ্রি পিস ও শাড়ি সংগ্রহ করেছি। বিক্রিও ভালো হচ্ছে। কয়েকদিন থেকেই ক্রেতাদের ভিড় লেগে আছে। আমরা ক্রেতা সাধারণের পছন্দের মান চিন্তা করে এবং নতুন ডিজাইনের শাড়ী, ত্রি-পিস, পাঞ্জাবী সহ ঈদ সামগ্রী কালেকশান করেছি। রমজানের মধ্যখানে যেভাবে ক্রেতাদের ভিড় বাড়ছে আশা করছি ঈদের আগেই আমাদের বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে।

উপজেলায় সবচেয়ে বড় পাঞ্জাবির শো-রুম দিয়েছেন বেষ্ট ওয়ান গার্মেন্টস। বারইয়ারহাট বেষ্ট ওয়ান গার্মেন্টেসের সত্বাধিকারী আনোয়ার হোসেন বলেন, এ বছর ক্রেতাদের সুবিধার্থে বারইয়ারহাট ছাড়াও জোরারগঞ্জ ও সীতাকুন্ডে পাঞ্জাবির শো-রুম দিয়েছি। বিক্রিও ভালো হচ্ছে। আশা করছি আমানুরূপ বিক্রি করতে পারবো।

ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এবার থ্রি পিসের মধ্যে প্রত্যেক দোকানেই দেখা গেছে ভারতীয় সিরিয়ালের অভিনেত্রীদের নামে পোষাকের চাহিদা বেশি। এবার নুতন আকর্ষন ‘কিরণমালা’। এছাড়াও ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে জলনূপুর টাপুরটুপুর, ঝিলিক, আশিকি টু, জলপরী, পাখি শাড়ি ও থ্রি-পিচ, সনিলিওন গোল্ডেন কুইন, সানি পানি, বুঝেনা সে বুঝেনা ও পাকিস্তানী কাজের থ্রি-পিস। এছাড়া শার্ট, প্যান্ট, পাঞ্জাবির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে তরুণদের মধ্যে। উপজেলার বিভিন্ন প্যান শার্টের দোকানে কেনাকাটার জন্য তরুণরা ভিড় করছেন। জমজমাট বিকিকিনি চলছে জুতা স্যান্ডেল ও কসমেটিকসের দোকানে।

উপজেলার মঘাদিয়া থেকে মিরসরাই সদরে কেনাকাটা করতে আসা গৃহবধূ সোলতানা মমতাজ বলেন, বর্ষায় প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও রজমানের শেষ পর্যায়ে ভিড় এড়াতে এখন তার মত অনেকেই আগাম কেনাকাটা সেরে নিচ্ছেন। তবে গত বছরের তুলানায় দাম একটু বেশি বলে জানান তিনি।

বারইয়ারহাট পৌর বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক হেদায়েত উল্লাহ বলেন, উত্তর চট্টগ্রামের বানিজ্য কেন্দ্র বারইয়ারহাটে হাজার হাজার মানুষ ঈদের কেনাকাটা করছেন। নির্বিঘেœ বেচা-কেনার জন্য আমরা নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিয়েছি। কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াড়ে থানা পুলিশের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ করা হচ্ছে। প্রয়োজনে বাজারে পুলিশি টহলের ব্যবস্থা করা হবে।

মতামত