টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

দখিনার উদ্যোগে সাদার্ন ইউনিভার্সিটিতে জলাবদ্ধতা বিষয়ক গোলটেবিল বৈঠক

SAMচট্টগ্রাম, ৩০ জুন (সিটিজি টাইমস):: মাসিক দখিনার আয়োজনে ‘জলাবদ্ধতায় আবদ্ধ চট্টগ্রাম : প্রতিকার ও উত্তোরণ” শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক আজ সোমবার সাদার্ন ইউনিভার্সিটির কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। মূলত বর্ষায় জলাবদ্ধতা থেকে নগরবাসীর দুর্ভোগ কিভাবে নিরসন করা সম্ভব এ ব্যাপারে যথাযথ কর্তৃপক্ষ কার্যকর ভূমিকা পালনে আরও বেশি আন্তরিক হবে এ উদ্দেশ্যে এ গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

মাসিক দখিনার সম্পাদক জনাব সরওয়ার জাহানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত গোলটেবিল বৈঠকে জলাবদ্ধতা নিরসনের উপায় বের করে নাগরিক সচেতনতা বাড়ানোর তাগিদ দেন বক্তারা।

প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদার বলেন, নগরীর জলবদ্ধতা নিরসন এখন আর চসিক ও অন্যান্য কর্তৃপক্ষ দ্বারা সম্ভব না। সরকারকেই এ সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসতে হবে। সঠিক পরিকল্পনা ও ব্যবস্থাপনা সর্বোপরি প্রকল্প বাস্তবায়নে জবাবদিহীতা ও তত্ত্বাবধানের নিশ্চিয়তা থাকলে এ সমস্যা থেকে দ্রুত উত্তোরণ সম্ভব।

স্থপতি বিধান বড়ুয়া বলেন, স্বাধীনতার পর দীর্ঘ বছর ধরে চট্টগ্রামে কেন্দ্রীয় ড্রেনেজ ব্যবস্থা তৈরি হয়নি। শুধু পরিকল্পনার কথা বলে যাচ্ছি কোনো কির্ছু বাস্তবায়ন হয়না।

প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. শরীফুজ্জামান আশা প্রকাশ করেন বর্তমান মেয়র জনাব আ. জ. ম নাসির উদ্দিনই এ সমস্যা সমাধানে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে পারবেন এবং সফল হবেন।

পাট ও বস্ত্র শিল্প রক্ষা কমিটির আহবায়ক আহমদ কবির বলেন, নগরীর জলবদ্ধতা নিরসনে আমাদেরকেই সচেতন হতে হবে এবং পলিথিন ব্যবহার নিষিদ্ধ করতে হবে।

এছাড়াও বক্তারা জলাবদ্ধতা জন্য অপরিকল্পিত নগরায়ন, খাল দখল, অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ,পাহাড় কাটা,যত্রতত্র আবর্জনা ফেলা, বিল্ডিং কোড না মানাসহ বিভিন্ন কারণকে দায়ী করেন।

দখিনার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক রিজোয়ান রাজনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত গোলটেবিল বৈঠকে বক্তব্য রাখেন, সাংবাদিক নাজিম উদ্দিন শ্যামল, গণসংহতি আন্দোলনের চট্টগ্রামের সমন্বয়কারী হাসান মারফ রুমী ,সাংবাদিক আবছার মাহফুজ, সাংবাদিক প্রীতম দাশ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন, প্রফেসর ড. আব্দুল মোক্তাদীর, প্রফেসর আহমদ হোসেন, সৌরভ সাখাওয়াত, হেদায়েত উল্লাহ, মো. জাহাঙ্গীর আলমসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ।

সমাপনী বক্তব্যে দখিনার সম্পাদক জনাব সরওয়ার জাহান বলেন, আসলেই এই গোলটেবিল বৈঠক আয়োজন করার একটাই উদ্দেশ্যে ছিল যাতে জলাবদ্ধতা বিষয়ে গণসচেতনা সৃষ্টি হয়। আর এই ধরনের আয়োজনের মাধ্যমে আলোচ্য বিশেজ্ঞদের মতামতসমূহ যদি তৃণমূল থেকে উচ্চ পর্যায়ে পৌঁছানো যায় তাহলে ইতিবাচক পরিবর্তন হবে বলে আমার বিশ্বাস।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত