টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

আজ রাত ১২টায় ভেঙে পড়বে পুরো ইন্টারনেট দুনিয়া!

internetচট্টগ্রাম, ৩০ জুন (সিটিজি টাইমস)::  আজ সেই ৩০শে জুন! গবেষকদের আশঙ্কা কি সত্যি হতে চলেছে? বাস্তবে ভেঙে পড়তে চলেছে গোটা ইন্টারনেট ব্যবস্থা? আজ ৩০ জুন রাত ১১টা ৫৯ মিনিট ৫৯ সেকেন্ডে ওয়ার্ল্ড ক্লকে যুক্ত হবে বাড়তি এক সেকেন্ড। আর্থ টাইম ও অ্যাটমিক টাইমের মধ্যে সময়ের সামান্য গরমিল মেটাতেই হবে এমনটা। গবেষকদের আশঙ্কা, এর ফলে ইন্টারনেট পাওয়ার সিস্টেমে ব্যাপক গোলযোগ ও ত্রুটি দেখা দিতে পারে। যার ফলে কিছু সিস্টেম ভেঙে পড়তে পারে, কিছু সিস্টেম আবার কয়েক সেকেন্ডের জন্য থমকে যেতে পারে। বৈজ্ঞানিকেরা একে বলছেন লিপ সেকেন্ড। কেন এই বাড়তি সেকেন্ড যোগ হচ্ছে ঘড়িতে? খবর আলোকিত বাংলাদেশ’র।

আমরা লিপইয়ারের সঙ্গে যতটা পরিচিত, লিপ সেকেন্ড শব্দটির সঙ্গে বোধহয় ততটা পরিচিত নই। কিন্তু আজ ৩০ জুন ঘটতে চলেছে লিপ সেকেন্ড। অর্থাৎ ৩০ জুন দিনটির মেয়াদ এক সেকেন্ড বেশি হবে। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার পক্ষ থেকে এ পুরো বিষয়টির কারণ বিস্তারিতভাবে জানানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে নাসার গদ্দার্দ স্পেস ফ্লাইট সেন্টারের তরফ থেকে ড্যানিয়েল ম্যাকমিলান জানিয়েছেন, পৃথিবীর ক্রমশ কমতে থাকা দৈনিক গতি অর্থাৎ আহ্নিক গতির সঙ্গে তাল মেলানোর জন্যই এই জুন মাসে অতিরিক্ত ১ সেকেন্ড যোগ করা হবে৷ ফলে আগামী ৩০ জুন রাত ১১ টা ৫৯ মিনিট ৫৯ সেকেন্ডের পরেই পয়লা জুলাইয়ের সূচনা হবে না। বরং আরও এক সেকেন্ড অপেক্ষা করতে হবে বিশ্বের সর্বত্রই।

তিনি আরো জানান, পৃথিবীর গতি একটু ধীর হচ্ছে। তাই কোঅর্ডিনেটেড ইউনিভার্সাল টাইম, বা ইউটিসি এবং অ্যাটমিক টাইম এর ভারসাম্য বজায় রাখতে ইউটিসি’তে ১ সেকেন্ড যোগ করা হবে। জুন মাসে সাধারণত ৮৬ হাজার ৪০০ সেকেন্ড থাকে। এবার তা হবে তার থেকে এক সেকেন্ড বেশি। ম্যাকমিলান জানান, সাধারণত, ঘড়িতে ২৩:৫৯:৫৯-এর পরই 00:00:00 অর্থাৎ পরের দিন হয়। কিন্তু ৩০ জুন ২৩:৫৯:৫৯ এর পর হবে ২৩:৫৯:৬০ এবং তার পরে হবে 00:00:00 অর্থাৎ পরের দিন, ১ জুলাই।

তবে এ ব্যাপারটি এই প্রথম ঘটছে না। ১৯৭২ সালে প্রথম লিপ সেকেন্ড যোগ করা শুরু হয়। ১৯৭২ থেকে ১৯৯৯ পর্যন্ত প্রায় গড়ে প্রতি বছর একবার করে লিপ সেকেন্ড যোগ করা হয়। তবে ২০০০ সালের পর থেকে এর আগ পর্যন্ত মাত্র চারবার লিপ সেকেন্ড যোগ করা হয়েছে।

সাধারণত প্রতিদিন আমরা ৮৬ হাজার ৪০০ সেকেন্ড গননা করে থাকি। কিন্তু এর বাইরেও প্রতিদিন ২ মিলি সেকেন্ড বা এক সেকেন্ডের ২ হাজার ভাগের মাত্র একভাগ বেশি সময় অতিবাহিত হয়। প্রতিদিনের এই অতিরিক্ত ২ মিলি সেকেন্ড মিলে প্রায় এক বছরে প্রায় ১ সেকেন্ড হয়।

মতামত