টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

পানিতে ভাসছে সীতাকুন্ডের নিম্নাঞ্চল: দূর্ভোগে অর্ধলক্ষাধিক মানুষ

মো. ইমরান হোসেন
সীতাকুন্ড প্রতিনিধি 

paniচট্টগ্রাম, ২৪ জুন (সিটিজি টাইমস):  সীতাকুন্ডে টানা বর্ষণে জনজীবনে চরম দুর্ভোগ নেমে এসেছে। ইতিমধ্যে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে উপকূলীয় ২০টি গ্রামের অর্ধলক্ষ মানুষ। তলিয়ে গেছে হাজার হাজার একর ফসলি জমির ধান ও সবজি। স্বস্তিতে নেই পাহাড়ে বসবাসকারীরাও। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লুঘুচাপের প্রভাবে গত দুইদিনের টানা বৃষ্টিতে সীতাকুন্ডের নিম্নাঞ্চল ও উপকূলীয় এলাকার বসত বাড়ি ও রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে ওই এলাকার বাসিন্দারা। এদিকে টানা বৃষ্টির কারণে সড়কে পানি উঠে যাওয়া যানবাহন পরিবহন চলাচল বিঘ্ন ঘটায় দূর্ভোগে পড়েছে এলাকাবাসী।

বুধবার সকালে সীতাকুন্ডের বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা গেছে, উপকূলীয় বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের আকিলপুর,বোয়ালিয়াকূল, জমাদার পাড়া, কুমিরা কাজী পাড়া, সমাদ্দার পাড়া, সোনারপাড়া, বাড়বকুন্ড, বারৈয়াঢালা ও সৈয়দপুর ইউনিয়নের উপকূলীয় অন্তত ২০টি গ্রামের ঘর-বাড়ি, রাস্তাঘাট, ফসলি জমি সবকিছুই পানিতে তলিয়ে গেছে।

ব্রিকফিল্ড এলাকার বাসিন্দা আইয়ুব খান জানান, টানা বৃষ্টির কারণে বহু ঘর-বাড়িতেও পানি ঢুকে গেছে। এতে তারা কয়েকদিন ধরে ঠিক মত রান্না বান্না করতেও পারছেন না।

ওই এলাকার কৃষক মো. রফিক উল্লাহ্ বলেন, এতদিন ধরে পানির জন্য আল্লাহ্ আল্লাহ্ করলাম। শুধু জমিতে চাষের জন্য। এখন তো এত বৃষ্টি হলো যতদিন না পানি কমছে ততদিন কিছুই করা যাবেনা।

সীতাকন্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুহাম্মদ শাহীন ইমরান জানান, টানা বৃষ্টিতে উপজেলার কিছু এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা কিছুটা দুর্বল হওয়ায় পানি নামতে সময় লাগছে।

paniআবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লুঘুচাপের প্রভাবে আগামী ২৪ ঘণ্টায় অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি আকারের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। একইসঙ্গে ভারী বর্ষণ হতে পারে। দেশের সমুদ্র বন্দরগুলোকে ৩ নম্বর ও নদীবন্দরগুলোকে ২ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত