টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ে টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে নিন্মাঞ্চল প্লাবিত

নিজামপুর রেলষ্টেশন সড়ক ভেঙ্গে ১০ হাজার মানুষের দুর্ভোগ

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি 

Mirsarai-Plabon-Photoচট্টগ্রাম, ২৪ জুন (সিটিজি টাইমস):  টানা দুইদিনের প্রবল বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে মিরসরাইয়ে নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

কাঁচা,পাকা,আধাপাকা রাস্তাসহ গ্রামীণ সড়কগুলো পানিতে ডুবে যাওয়ায় যানবাহন ও জন চলাচলে অসুবিধার সৃষ্টি হচ্ছে। কোন কোন অঞ্চলে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ভেসে গেছে বহু মৎস্য ঘের ও পুকুরের মাছ।

জানা গেছে, দুইদিনের টানা বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে উপজেলার ওসমানপুর,ইছাখালী, কাটাছড়া, সাহেরখালী, ধুম মিঠানালা, ওয়াহেদপুর ও মঘাদিয়া ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। খৈয়াছড়া ইউনিয়নের ফেনাপুনী গ্রামে পানিবন্দী হয়ে জীবন যাপন করছে শতাধিক পরিবারের লোকজন।

অপরদিকে, ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে পাহাড় ধ্বসের আতংক, আশংকা নিয়ে দিন কাটাচ্ছে পাহাড়ী এলাকা করেরহাট, খৈয়াছড়া, ওয়াহেদপুর, জোরারগঞ্জ, মিরসরাই সদর ইউনিয়নের পাহাড়ী-বাঙালীসহ প্রায় ৩০ হাজার মানুষের পরিবার।

পাহাড়ি ঢলে ভেঙ্গে গেছে উপজেলার জনবহুল ও গুরুত্বপুর্ণ নিজামপুর রেল ষ্টেশন সড়ক। প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে ৫টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ যাতায়াত করে। প্রবল বর্ষা আর পাহাড়ী ঢলে সড়কের একটি অংশ ভেঙ্গে যাওয়ায় চরম দূর্ভোগে পড়েছেন ওই সড়ক দিয়ে যাতায়াতকারী প্রায় ১০ হাজার মানুষ। গত বছর বর্ষা মৌসুমে সড়কটি ভেঙ্গে গেলে এলাকার লোকজন কোনমতে বাঁশের সাঁেকা দিয়ে করেছে। কিন্তু এবারের বর্ষায় সাঁকোটি ভেঙ্গে যাওয়ায় মানুষ চলাচল করতে পারছেনা।

এই বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দিন সেলিম বলেন, প্রতি বছর ইউনিয়ন পরিষদের তহবিল থেকে এই সড়কের মেরামত কাজ করা হয়। বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ী ঢলের কারণে সড়কের বিভিন্ন অংশে ভেঙ্গে যায়। সড়কের বেঙ্গে যাওয়া স্থানে একটি ব্রীজ নির্মানের প্রস্তাব দেয়া আছে। কিন্তু তা এখনো অনুমোদন না পায়নি। এছাড়াও প্রবল বর্ষণে উপজেলার বারইয়ারহাট পৌরসভার প্রায় সবকটি সড়কে পানি উঠে চলাচলে বিঘœ ঘটছে। বিশেষ করে মসজিদ রোড়ের অবস্থা একেবারে নাজুক। সামান্য বৃষ্টি হলেই পানিতে থৈথৈ করে সড়কটি। এতে করে আশপাশের ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষের ভোগান্তি পোহাতে হয়।

জানা গেছে, মিরসরাই উপজেলার প্রায় শতাধিক খাল দীর্ঘদিন যাবত খনন এবং সংষ্কার না হওয়ার ফলে জলাবদ্ধতা প্রকট আকার ধারণ করছে। খাল পার্শ্ববর্তী হাট-বাজারগুলোকে ঘিরে গড়ে উঠেছে শত শত অবৈধ দোকানপাট ও স্থাপনা। এসব স্থাপনা ও দোকানপাটের কারণে বিভিন্ন খালে পানি প্রবাহে বিঘ্নঘটে। ফলে প্রত্যেক বছর নিম্নাঞ্চলীয় এলাকাগুলো পানির নিচে ডুবে যায়।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত