টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বঙ্গোপসাগরেও ছড়িয়েছে তেল: কাজে আসেনি চট্টগ্রাম বন্দরের ‘অয়েল বুম’

ctgচট্টগ্রাম, ২২ জুন (সিটিজি টাইমস)::   চট্টগ্রামের বোয়ালখালী খালে ছড়িয়ে পড়া তেল আটকানোর জন্য বসানো চট্টগ্রাম বন্দরের ‘অয়েল বুম’ কাজে আসেনি। বোয়ালখালী খালের মিলিটারি পুল এলাকায় তেল আটকানোর এই বিশেষ যন্ত্র বসানো হয়েছিল। জোয়ার-ভাটার স্রোত থাকায় বসানো ওই বুমে গত ২৪ ঘণ্টায় তেমন তেল আটকাতে পারেনি। কাজে না আসায় ওই বুম সোমবার বিকালের দিকে সরিয়ে নেওয়া হবে বলে বন্দর সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে, জোয়ার-ভাটার টানে তেল অনেক দূর এমনকি কর্ণফুলী নদী হয়ে বঙ্গোপসাগরেও চলে গেছে। হালদা নদীতেও তেল ছড়িয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার দুপুরে চট্টগ্রাম থেকে দোহাজারী যাওয়ার পথে তেলবাহী একটি রেলের তিনটি বগি সেতু ভেঙে খালে পড়ে যায়। ওই বগি থেকে ৭০ থেকে ৮০ হাজার লিটার তেল পানিতে ছড়িয়ে পড়ে।

ছড়িয়ে পড়া তেল আটকানোর জন্য ঘটনার তিন দিন পর রবিবার দুপুরে খালের উজানে মিলিটারি পুল এলাকায় চট্টগ্রাম বন্দরের অয়েল বুম বসানো হয়।

পরিবেশ অধিদফতর চট্টগ্রামের পরিচালক মকবুল আহমদ বলেন, ‘বুম তেল আটকাতে পারেনি। যে পজিশনে থাকলে এটি পানি থেকে তেল আটকাতে পারতো মূলত জোয়ার-ভাটার স্রোতের কারণে ঠিক সেই পজিশনে এটি থাকেনি।’

এ অবস্থায় স্থানীয়ভাবে মানুষের মাধ্যমে তেল সংগ্রহ করার ওপরই নির্ভর করতে হচ্ছে— বলেন তিনি।

মকবুল আহমদ আরও বলেন, ‘ঘটনার পরের দিন আমরা কচুরিপনা, ঘাস ও কলাগাছ দিয়ে খালের উপর আড়াআড়ি বাঁধ দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলাম, কিন্তু সেটা করা হয়নি। ফলে ক্ষতি যা হওয়ার হয়ে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘জোয়ার-ভাটার টানে তেল অনেক দূর এমনকি কর্ণফুলী নদী হয়ে বঙ্গোপসাগরেও চলে গেছে। হালদা নদীতেও তেল ছড়িয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। নমুনা সংগ্রহের জন্য সেখানে টিম পাঠানো হয়েছে। এখন খালের তীরের তেল মাখানো ঘাস ও কচুরিপনা অপসারণ করাই গুরুত্বপূর্ণ, রেলের নিয়োজিত লোকজন সেগুলো দ্রুত সরিয়ে নিচ্ছে।’

চট্টগ্রাম বন্দরের পরিচালক (অপারেশন) জাফর আলম বলেন, ‘জোয়ার থেমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অয়েল বুম পরিষ্কার করতে হয়, কিন্তু এখানে কেউ সেটা করেনি। ফলে যে তেল বুমের গায়ে আটকা পড়েছিল ভাটার টানে তা আবার চলে গেছে।’

সোমবারের দ্বিতীয় জোয়ারের পর বুম সরিয়ে নেওয়া হতে পারে বলেও বলেন জাফর আলম।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল্ল্যাহ ও চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মেজবাগ উদ্দিন সোমবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

রবিবারের আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠকে বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল্ল্যাহকে প্রধান করে বোয়লখালী রেল দুর্ঘটনা ও তেল নিঃসরণ সংক্রান্ত একটি সমন্বয় কমিটির গঠন করা হয়েছে।

মতামত