টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে অল্প বৃষ্টিতে হাঁটুপানি, চলাচলে ভোগান্তি

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

চট্টগ্রাম, ১১ জুন (সিটিজি টাইমস)::   বৃষ্টি ও জল জট বৃহস্পতিবার বেলা ১২টা থেকে ৩টা পর্যন্ত মাত্র তিন ঘণ্টার বৃষ্টিতে ডুবে গেছে বন্দরনগরী চট্টগ্রাম। অকেঁজো পানি নিষ্কাষণ ব্যবস্থার কারণে নগরীর অধিকাংশ এবং গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা।

নগরীর নিচু অঞ্চল বিশেষ করে হালিশহর, আগ্রাবাদ, সিডিএ আবাসিক এলাকা, বাকলিয়া, শোলকবহর ও মুরাদপুরের বিস্তীর্ণ এলাকা হাঁটু পানিতে ডুবে গেছে। এসব এলাকার রাস্তায় পানি জমে থাকার কারণে যান চলাচল করতে পারছে না। দুপুর থেকে থমকে আছে পুরো নগরী।

অবশ্য অল্প বৃষ্টিতে সৃষ্টি হওয়া এ জলাবদ্ধতাকে জলাবদ্ধতা বলতে নারাজ চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারা। তারা একে বলছেন জলজট। আকস্মিক বৃষ্টিতে এ জলজট সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন তারা। খুব শিগগিরই জমে থাকা জল নিষ্কাষণ হবে বলেও জানিয়েছেন তারা।

বেলা ১২টা থেকে মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হলে যানজট ও জলজটে থমকে যায় পুরো নগরী। এসময় নগরীর ব্যস্ততম ও গুরুত্বপূর্ণ মুরাদপুর এলাকায় সৃষ্টি হওয়া যানজট বিস্তৃত হয় আশেপাশের এলাকাগুলোতেও। এসময় অসহনীয় পরিস্থতি সৃষ্টি হয়। হাঁটু পানিতে ডুবে যায় গাড়িঘোড়া, দোকানপাট। পথচারীদেরকে এসময় চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে।

মুরাদপুরে ফ্লাইওভারের কাজ চলায় সেখানে প্রায়ই যানজট লেগে থাকে। তার মধ্যে মড়ার ওপর খাড়ার ঘা হিসেবে জলাবদ্ধতা যোগ হয়ে মানুষের ভোগান্তির মাত্রাকে বাড়িয়ে দিয়েছে কয়েকগুণ।

মুরাদপুরে থাকা সাকিব জানান, ওই এলাকা হাঁটু সমান পানিতে ডুবে গেছে। তার প্রভাব গিয়ে পড়েছে নগরের অন্যান্য এলাকায়। সে কারণে বিভিন্ন সড়কে যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের সহকারি কর্মকর্তা মো. আরমান বলেন, ‘মৌসমী বায়ুর প্রভাবে সারাদেশের মতো চট্টগ্রামেও বেলা ১২টার পরে থেকে বৃষ্টি হচ্ছে। ৩টা পর্যন্ত ৮ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড হেয়েছে। থেমে থেমে এ বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে।’

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত