টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

একান্ত বৈঠকঃ হঠাৎ মনজুরের বাসায় মহিউদ্দিন চৌধুরী

mohiuddin-monjur1চট্টগ্রাম, ০৮ জুন (সিটিজি টাইমস) :: চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমের কাট্টলীর বাসায় গিয়ে সাক্ষাৎ করেছেন আরেক সাবেক মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী। 

সোমবার দুপুরে মনজুর কাট্টলীর বাসায় অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে ‘গুরু-শিষ্য’ একান্তে দেড় ঘন্টা কথা বললেও তাদের আলোচনার বিষয়বস্তু কি তা জানা যায়নি।

যদিও মনজুর আলমের ছেলে সরওয়ার আলমের দাবি, দু’জনের অতীত অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে চট্টগ্রামের উন্নয়নে কাজ করতে একমত হতেই একান্ত বৈঠকে মিলিত হয়েছেন সাবেক এ দুই মেয়র।

সূত্রে জানা গেছে, গত ২৮ এপ্রিলের পর থেকে নির্বাচন বর্জন করে একদিকে মনজুর আলম যেমন নিজ পরিবার নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন।

অন্যদিকে শারীরিক অসুস্থতার কারণে হাসপাতাল আর বিছানা নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন মহিউদ্দিন চৌধুরী।

অনেকটা হঠাৎ করেই নিজ গাড়িতে চেপে সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শিষ্য মনজুর আলমের বাসায় যান গুরু মহিউদ্দিন চৌধুরী। এ

সময় মহিউদ্দিনকে স্বাগত জানান মনজুর।

পরে চট্টগ্রামের সাবেক এ দুই নগরপিতা একান্তে প্রায় দেড়ঘন্টা বৈঠক করেন।

চট্টগ্রামের মেয়র হিসেবে নাছির নির্বাচিত হওয়ায় নগর আওয়ামী লীগের রাজনীতি অনেকটা দলের সাধারণ সম্পাদক নাছির কেন্দ্রিকই হয়ে পড়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে দলীয় সব কর্মসূচিতে মহিউদ্দিন উপস্থিত হতে না পারলেও প্রতিটি কর্মসূচিতে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন মেয়র নাছির।

এমনকি নিজের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মহিউদ্দিনের উপস্থিতিতেই আ জ ম নাছির ঘোষণা দেন, দলের সুবিধাভোগী নেতাদের চিহ্নিত করে ত্যাগী নেতাদের গুরুত্বপূর্ণ পদে বসানো হবে।

ঢেলে সাজানো হবে নগর আওয়ামী লীগের ইউনিট, ওয়ার্ড ও থানা কমিটিকে।

এনিয়ে নগর আওয়ামী লীগে নতুন করে মেরুকরণেরও আভাস পাওয়া গিয়েছিল।

মহিউদ্দিন-মনজুরের এই একান্ত বৈঠকে কি নিয়ে আলোচনা হয়েছে সেটি নিশ্চিত করে জানা না গেলেও নগর রাজনীতি যে বাদ যায়নি আলোচনা থেকে সেটিও নিশ্চিত করা যাচ্ছেনা।

সব মিলিয়ে এই মূর্হুতে সাবেক দুই মেয়রের এই বৈঠকটি নগর রাজনীতিতে নতুন করে আলোচনার জন্ম দিচ্ছে।

বিশ্লেষণ করা হচ্ছে- কেনই বা মনজুর বাসায় গেলেন মহিউদ্দিন?

 

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত