টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ে ভাবিকে প্রকাশ্যে মারধরের অভিযোগ দেবরের বিরুদ্ধে

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম, ০৫ জুন (সিটিজি টাইমস) ::মিরসরাইয়ে পারিবারিক বিরোধের জেরে দেবরের হাতে নির্যাতিত হয়েছেন গৃহবধু আনোয়ারা বেগম (২৮)। প্রকাশ্যে মানুষের সামনে রাস্তার উপর নির্যতানের পর আনোয়ারা বেগমকে বাড়ি থেকে বের হয়ে যাওয়ার হুমকী দেয় তার দেবর মাহফুজুল হক। শুক্রবার সকাল ১০ টায় মিরসরাই সদর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের আমানটোলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। হামলার শিকার গৃহবধুকে ঘটনার পরপরই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রথমিক চিকিৎসা নেন। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত আনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে মিরসরাই থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
সরেজমিন গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, আমানটোলা গ্রামের শের আলী প্রকাশ বড়মিয়ার স্ত্রী আনোয়ারা বেগমকে শুক্রবার সকালে ঘর থেকে উঠানে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে মারধর করতে থাকে । একপর্যায়ে ইট দিয়ে আঘাত করে মাহজুফ। আনোয়ারা বেগম বলেন, তার গলায় পা দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে মাহফুজ। দৌড়ে সেখান থেকে পাশ্ববর্তী একটি ঘরে লুকিয়ে গেলে সেখান থেকেও টেনে হিঁচড়ে মারধর করতে থাকে সে। প্রাণবাচাতে বিশ্বদরবার মাজারের সামনে রাস্তায় চলে গেলেও সেখানে অনেক মানুষের সামনে ইট ও লাঠি দিয়ে মারতে থাকে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বাঁচাতে এগিয়ে এলে তাদেরকেও মারধরের হুমকী দেয় মাহফুজ। স্থানীয় ইউপি মেম্বার মোহাম্মদ আলমগীর এগিয়ে এসে আনোয়ারাকে উদ্ধার করে। এরপর বাড়ীর লোকজন তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।

আনোয়ারার স্বামী শের আলী বলেন, আমার বাবার জীবদ্দশায় জোরপূর্বক তাঁর কাছ থেকে জায়গা সম্পত্তি নিজের নামে করে নেয় মাহফুজ। বাবার মৃত্যুর পর ঘর থেকে বের করে দেওয়ার হুমকী দিয়ে বিভিন্ন সময় আমার স্ত্রী ও দুই ছেলেকে মারধর করতো। আমি এলাকাবাসীর কাছে বিচার চেয়েও কোন সুফল পাইনি।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার আলমগীর হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, শুক্রবার সকালে মাহফুজ তার ভাবিকে প্রকাশ্যে ইট দিয়ে মারধর করে। প্রানে বাচতে ঘরে লুকিয়ে গেলেও সেখান থেকে টেনে হিচড়ে রাস্তায় মারধর করে। মাহফুজ শালিশ বিচার মানে না।

মিরসরাই থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই শফিকুল ইসলাম বলেন, আমানটোলা গ্রামে হামলার ঘটনায় আনোয়ার বেগমের একটি লিখিত অভিযোগ আমরা পেয়েছি। ঘটনা তদন্তপূর্বক এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অভিযুক্ত মাহফুজুল হক বলেন, ভাবিকে শাসন করার চেষ্টা করেছি। মারধর করার কোন অধিকার তার আছে কিনা এমন প্রশ্নে মাহফুজ ক্ষিপ্ত হয়ে বেশি করে লিখে দেন বলে উত্তেজিত হয়ে পড়েন।

মতামত