টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

কক্সবাজারে গাছের সঙ্গে বেঁধে নারী নির্যাতন

coxচট্টগ্রাম, ০৪ জুন (সিটিজি টাইমস) ::  কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার উপকুলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়ার নোয়াখালী পাড়ায় এক নারীকে গাছের সাথে হাত পা বেধে নির্মম নির্যাতন চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার রাতে নোয়াখালীপাড়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটে। হামলাকারীরা এসময় নির্যাতিত নারীর বসতবাড়ি ভাংচুর নগদ ৮০ হাজার টাকা, স্বর্ণালংকার ও মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে গেছে।

এরকম মর্মষ্পর্শী ঘটনার ব্যাপারে টেকনাফের শাপলাপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পুলিশ পরিদর্শক হাবিবুর রহমান বলেন-‘সত্যিই ঘটনাটি অত্যন্ত বেদনাদায়ক। আমি সংবাদ পেয়েই ওই গ্রামটিতে ছুটে যাই। দেখি একজন নারীকে গাছের সাথে বেঁধে নির্মম ভাবে পিটানো হয়েছে। ওই নারী তখন কাঁদছেন আর কাঁপছেন। তাকে সেখান থেকে চিকিৎসার জন্য নিতে বলি এবং সেই সাথে আমার কাছে অভিযোগ আনতে পরামর্শ দিই। কিন্তু এখনো পর্যন্ত (আজ বিকালে) অভিযোগ নিয়ে না আসায় কোন ব্যবস্থাও নিতে পারছি না।’

জানা গেছে, একই এলাকার ভূমিদস্যু ও মানবপাচারকারী হিসাবে পরিচিত এজাহার মিয়ার ছেলে আলী হোছন, নুর হোছন, বদিউজ্জমানের ছেলে ছৈয়দ আলী, আলী হোছনের ছেলে জামাল উদ্দীন, সব্বির আহামদের ছেলে মোঃ আলী ও ভাই মোঃ আলম, নুর হোছনের স্ত্রী আমিনা খাতুন, আলী হোছনের স্ত্রী বেলুজা খাতুন, মিয়াজানের স্ত্রী আমিনা খাতুন, ছৈয়দ আলীর স্ত্রী নুর বেগমের নেতৃত্বেদিন মজুর হোছন আলীর স্ত্রী জাহেদা বেগমকে (২০) হাত পা বেধে বেদম মারধর ও নির্যাতন চালায়। এমনকি তাকে এক পর্যায়ে গাছের সাথে বেঁধেও মারধর করে।

জাহেদার (২০) স্বামী দিনমজুর হোছন আলী সংবাদকর্মীদের জানান, ঘরে আমার অনুপস্থিতে হামলাকারীরা জমি সংক্রান্ত দ্বন্ধের জের ধরে হাত-পা বেধে আমার স্ত্রীকে বর্বর নির্যাতন করে। এতে জাহেদা অচেতন হয়ে পড়লেও পাষ-রা তাকে মারতে থাকে। তাকে অচেতন অবস্থায় সেখান থেকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে নিয়ে যাই। তিনি আরো জানান, তাদের নিকট আত্মীয় এখানে না থাকায় হামলাকারীরা তার উপর মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালিয়েছে। স্থানীয় কমিউনিটি পুলিশিং সভাপতি মোহাম্মদ ইলিয়াস জানান-বিষয়টির বিস্তারিত আমি জানি। পুলিশের কাছে লিখিত এজাহার সহ নির্যাতিত জাহেদাকে নিয়ে যাবার দায়িত্বও আমি নিয়েছি কিন্তু ওদের অবস্থা এত বেশী খারাপ যে,কোন টাকা পয়সাও নেই তাই ওরা পুলিশের কাছে যেতে বিলম্ব করছে।

খবর পেয়ে বাহরছড়া ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে জাহেদাকে হাত-পা বাধা অবস্থায় উদ্ধার করে। পুলিশের উপস্থিতিতে হামলাকারীরা প্রকাশ্যে আবার হামলার চেষ্টা করে। তবে পুলিশ কাউকে আটক করেনি। বাহারছড়া ফাঁড়ির আইসি জানান, নির্যাতনের ব্যাপারে কেউ অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত