টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

নগরীতে গোসল করতে হাতি নেমেছে দিঘীতে, এলাকায় তুলকালাম

হাতিকে ‘বিপদ’ আখ্যা দিয়ে স্থানীয় মুসলমান সম্প্রদায়ের লোকজন হুজুর ডেকে দোয়া-দরুদ পড়ান। হিন্দু সম্প্রদায়ের স্থানীয় লোকজন ‘দেবতা এসেছেন’ বলে গুজব ছড়িয়ে ব্রাক্ষ্মণ ডেকে দু’দফা পূজা করান। শত, শত লোকজন এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে সামিল হন

hatiচট্টগ্রাম, ০৩ জুন (সিটিজি টাইমস) ::  দিঘীতে গোসল কর‍াতে একটি হাতি নামানোর পর নগরীর এনায়েতবাজার এলাকায় বুধবার সকাল থেকে তুলকালাম কান্ড চলছে।

সপ্তাহখানেক আগে একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামের নবনির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনকে সালাম দেয়ার জন্য হাতিটিকে বান্দরবান থেকে চট্টগ্রামে আনা হয়। এরপর থেকে হাতিটি চট্টগ্রামে রেখে দেয়া হয়েছিল। বুধবার সকাল ৯টার দিকে হাতিটিকে এনায়েতবাজারের রাণীর দিঘীতে নামানো হয়। এরপর রাত ৯টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত হাতিটিকে অনেক চেষ্টা করেও আর পাড়ে তুলতে পারছেন না মেহেদি হাসান ও তার সঙ্গে থাকা আরেকজন।

হাতিকে ‘বিপদ’ আখ্যা দিয়ে স্থানীয় মুসলমান সম্প্রদায়ের লোকজন হুজুর ডেকে দোয়া-দরুদ পড়ান। হিন্দু সম্প্রদায়ের স্থানীয় লোকজন ‘দেবতা এসেছেন’ বলে গুজব ছড়িয়ে ব্রাক্ষ্মণ ডেকে দু’দফা পূজা করান। শত, শত লোকজন এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে সামিল হন।

খবর পেয়ে রাত ৮টার দিকে ঘটনাস্থলে যান কোতয়ালি থানা পুলিশের একটি টিম। তারা উৎসুক জনতার ভিড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন।

কোতয়ালি থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) কাজী মাসুদ ইবনে আনোয়ার বলেন, সম্ভবত মানুষের ভিড় দেখে হাতিটি দিঘী থেকে আর উঠছেনা। আমরা মানুষজন সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছি। রাতে লোকজন সরে গেলে হাতিটি পাড়ে উঠতে পারে।

হাতির পরিচর্যাকারী মেহেদি হাসান জানান, হাতির মূল মাহুত থাকেন সিলেটে। তার তিনটি হাতি আছে। সেগুলো সার্কাসের দলে ভাড়া হিসেবে খাটায় মাহুত।

রাণীর দিঘীর পাড়ের বাসিন্দা জোবায়ের আহমেদ জানান, হাতিটিকে যতই তুলতে চান, ততই সেটি পুরো দিঘীজুড়ে চষে বেড়ানো শুরু করেন। হাতিটি পানি শুঁড় দিয়ে পানি ছিটানো শুরু করেন। হাতির দাবড়ানি দেখে আর ডাক শুনে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে কৌতুহল এবং আতংক ছড়িয়ে পড়ে। শত, শত মানুষ জড়ো হন দিঘীর পাড়ে।

 

মতামত