টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

নগরীতে ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ে বসবাস, ৮ জুনের মধ্যে যাওয়ার নির্দেশ

paharচট্টগ্রাম, ০২ জুন (সিটিজি টাইমস) :: নগরীর ১১টি ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ে বসবাসকারীদের ৮ জুনের মধ্যে সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন।

মঙ্গলবার সকাল ১১টায় পাহাড় ব্যবস্থাপনা কমিটির এক সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। অন্যতায় ৯ জুন থেকে পাহাড়ে গড়ে উঠা অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ বসতি উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিভাগীয় কমিশনারের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড় মালিক ও সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভা শেষে চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বলেন, ‘চট্টগ্রামের ১১টি পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ বসবাসকারী ৬৬৬ পরিবারকে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এ পরিবারগুলোকে সরে যাওয়ার জন্য মাইকিং ও নোটিশ দেয়া সত্ত্বেও তারা বসতি সরিয়ে নেয়নি। ’

“৮ জুনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট সকলকে ঝুঁকিপূর্ণ বসতি সরিয়ে নিতে পুনরায় নোটিশ দেওয়া হবে।

এর মধ্যে যদি তারা সরে না যায় তবে জানমাল রক্ষার স্বার্থে আগামী ৯ জুন থেকে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হবে।

অভিযানের পূর্বে সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলো থেকে গ্যাস, বিদ্যুৎ এবং ওয়াসার পানি সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হবে।”

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন বাংবলেন, ‘অভিযানের আওতায় প্রথমে নগরীর মতিঝর্ণা ও বাটালি হিলে অধিক ঝুঁকিপূর্ণভাবে বসবাসকারীদের উচ্ছেদ করা হবে।

পর্যায়ক্রমে অন্যান্য পাহাড়ে অধিক ঝুঁকিপূর্ণে বসবাসকারীদেরও উচ্ছেদ করা হবে। ’

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন, সিডিএ, ওয়াসা, রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে এ উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালিত হবে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

উচ্ছেদকারীদের পুনর্বাসনের কোন সিদ্ধান্ত আছে কিনা এমন প্রশ্নে বিভাগীয় কমিশনার বলেন, ‘উচ্ছেদকারীদের যদি কোথাও পুনর্বাসন করা হয় তবে পাহাড় গুলো পুনরায় অবৈধভাবে অন্য একটি গ্রুপ দখল করবে।

তারাও বলবে তাদেরকে পুনর্বাসন করতে। তাই উচ্ছেদের পর পুনর্বাসনের কোন চিন্তা প্রশাসনের নেই। ’

মতামত