টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ম্যাগি নুডলসে সিসা নিয়ে জনমনে শঙ্কা

maggiচট্টগ্রাম, ২৪ মে (সিটিজি টাইমস) :: পাঁচ বছরের জায়ান কিছুই মুখে দিচ্ছে না, যেন কোনো খাবারই স্বাদ পাচ্ছে না সে। পাশের বাড়ির ভাবির পরামর্শে তার মা নিলুফার ইয়াসমিন বাজার থেকে ম্যাগি ইনস্ট্যান্ট নুডলস কিনে রান্না করে দিতেই পুরোপুরি পাল্টে গিয়ে জায়ান রীতিমত খাদকে পরিণত হলো। বিজ্ঞাপনেই ম্যাগি নুডলসের এমন যাদুর হয়তো দেখা মিলবে। বাস্তবতা হলো- ছেলেকে আগে নিয়মিত ম্যাগি নুডলস খেতে দিলেও গত সপ্তাহ থেকে ম্যাগি খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন নিলুফার। ভারতের উত্তর প্রদেশে ম্যাগি নুডলসে অতিরিক্ত সিসা ও রাসায়নিক পাওয়ার কারণে তিনি এ পদক্ষেপ নিয়েছেন।

তার আশঙ্কা, স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত হলেও ভারতের মতো বাংলাদেশে বিক্রিত ম্যাগি নুডলসে ক্ষতিকর সিসা ও রাসায়নিক থাকতে পারে। কেননা, আমাদের দেশে যেসব ম্যাগি নুডলস বিক্রি হয়, তার সাথে ভারতে বিক্রিত ম্যাগি নুডলসের খুব একটা পার্থক্য নেই।

শুধু নিলুফার নয়, এমন অনেকেই সিসার শঙ্কায় ম্যাগি নুডলস খাওয়া বন্ধ রেখছেন। বিক্রেতারাও জানিয়েছেন, এক সপ্তাহ ধরে ম্যাগি নুডলসের বিক্রি কিছুটা কমেছে।

তারা জানান, বর্তমানে চার আকারের প্যাকেট ম্যাগি নুডলস বিক্রি হয়। এর মধ্যে এক পিসের ম্যাগি নুডলস প্যাকেটের দাম ১৭ টাকা, ৪ পিসের প্যাকেট ৫০ টাকা, ৮ পিসের প্যাকেট ৯০ টাকা এবং ১২ পিসের প্যাকেট ১৯৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এর মধ্যে ৪ ও ৮ পিসের প্যাকেটের দাম সপ্তাহ তিনেক আগে কমানো হয়েছিল, পূর্বে এ প্যাকেট দুটির দাম ছিল যথাক্রমে ৮৫ ও ১৩০ টাকা।

রাজধানীর একাধিক বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পূর্বে প্রতি সপ্তাহে ১ পিসের ম্যাগি নুডলস গড় ৩০ থেকে ৪০ প্যাকেট এবং অন্যান্যগুলো মাসে ১৫ থেকে ২০ প্যাকেট বিক্রি হতো। কিন্তু গত কয়েকদকিন ধরে বিক্রি কিছুটা কমেছে।

এ ব্যাপারে উত্তর প্রদেশে বাজারে থেকে ম্যাগি নুডলস সরানোর ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলে তারা জানান, এ ধরনের কিছু তারা শোনেননি।

প্রসঙ্গত, ম্যাগি নুডলসে বিপজ্জনক মাত্রায় সীসা থাকায় ভারতের উত্তরপ্রদেশের সব দোকান থেকে পণ্যটি ফিরিয়ে নিতে গত সপ্তাহে প্রস্তুতকারক নেসলেকে নির্দেশ দিয়েছে প্রদেশটির খাদ্যের মান নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত দপ্তর ‘ফুড সেফটি অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন’।

গত বছর মার্চ মাসে তৈরি ম্যাগি ইনস্ট্যান্ট নুড্‌লসের প্যাকেটের একটি ব্যাচে মাত্রাতিরিক্ত সীসা থাকার কারণেই তা বাজার থেকে তুলে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একইসাথে ওই প্যাকেটগুলোতে মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট (এমএসজি যা আজিনোমোটো নামেই পরিচিত) অনুমোদিত মাত্রার চেয়ে বেশি পরিমাণে থাকায় এ নির্দেশ দেয়া হয়।

এফডিএ জানিয়েছে, সংশ্লিষ্ট ব্যাচের দুডজন প্যাকেট রাজ্য সরকার পরিচালিত ল্যাবরেটরিতে রুটিন মাফিক পরীক্ষা করা হয়। দেখা যায়, তাতে সীসার পরিমাণ ১০ লক্ষ ইউনিটে ১৭.২ ভাগ। যদিও আদতে তা ০.০১ থেকে ২.৫ ভাগের বেশি থাকার কথা নয়। অর্থাৎ, এ ক্ষেত্রে সীসার পরিমাণ ৭ গুণ বেশি। পাশাপাশি, নুড্‌লসের স্বাদ বাড়াতে যে মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট যোগ করা হয়, তার পরিমাণও ছিল অনেক বেশি।

এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানান, অতিরিক্ত সিসা থাকলে রক্তে হিমোগ্লোবিন তৈরির প্রক্রিয়া ব্যাহত হয়ে প্রবল নিউমোনিয়া হতে পারে। ফুসফুসের বায়ুথলির পর্দা ফেটে যাওয়ার আশঙ্কাও থাকে। শরীরের প্রতিরোধক ক্ষমতাও কমে যায়।’

তবে মনোসোডিয়াম গ্লুটেমেট স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক কিনা এই বিষয়ে এখনও বিতর্ক রযেছে। মনোসোডিয়াম গ্লুটেমেট যুক্ত খাবার খাওয়ার ফলে মাথা ব্যাথা, বমি বমি ভাব, হজমের অসুবিধা হয় অনেকেরই। যেখানে খাবারে এই রাসায়নিকের অনুমোদিত পরিমান ০.০১ পিপিএম, সেখানে ম্যাগিতে মনোসোডিয়াম গ্লুটেমেট রয়েছে ১৭ পিপিএম।

অবশ্য ভারতে উৎপাদিত ম্যাগি নুডলসে বাংলাদেশ বিক্রি হয় না। দেশে বিক্রিত ম্যাগি নুডলস গাজীপুরে নেসলে বাংলাদেশের নিজস্ব কারখানায় উৎপাদিত হয়।

তবে নিলুফারের মতো সাধারণ ভোক্তাদের আশঙ্কা, বাংলাদেশে উৎপাদিত ম্যাগি নুডলসেও অতিরিক্ত সিসা ও রাসায়নিক থাকতে পারে।

তাদের মতে, ভারতের মতো একই পদ্ধতিতে বাংলাদেশ ম্যাগি তৈরি হয়। এমনকি স্বাদও একই। কেউ কেউ জানিয়েছেন, ভারত ভ্রমণে ম্যাগি নুডলস খেয়ে তারা এমনটি পেয়েছেন।

তাই বাংলাদেশে বিক্রিত ম্যাগি নুডলসে মাত্রাতিরিক্ত সিসা ও রাসায়নিক আছে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা জেগেছে তাদের মনে।

ম্যাগি নুডলসে প্যাকেটে পরীক্ষা করে দেখা গেছে, গায়ে মনোসোডিয়াম গ্লুটামেটের পরিমাণ লেখা নেই।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) সাথে যোগাযোগ করা হলে সংস্থাটির পরিচালক (সিএম) কমল দাশ  জানান, দেশে বিক্রিত ম্যাগি নুডলসে অতিরিক্ত সিসা ও রাসায়নিক থাকার প্রমাণ এখনো পাওয়া যায়নি।

তিনি বলেন, ভারতের ঘটনা সম্পর্কে আমরা সজাগ আছি এবং প্রতিনিয়ত নতুন করে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করছি। ক্ষতিকর মাত্রায় পাওয়া গেলে সে ব্যাপারে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তবে নেসলে বাংলাদেশের সাথে যোগযোগ করা হলে ম্যাগি নুডলস পরবর্তী এ ব্যাপারে কোম্পানির পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হবে বলে জানানো হয়। কিন্তু তিন দিনেও ফিরতি যোগাযোগ করা বা প্রত্যুত্তর দেয়া হয়নি।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত