টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রাউজানে প্রেমের বিয়ে : প্রেমিক জেলে, প্রেমিকা সেভহোমে

এস.এম. ইউসুফ উদ্দিন
রাউজান প্রতিনিধি

Raozan-news-pic-2চট্টগ্রাম, ২১ মে (সিটিজি টাইমস) :: রাউজানে প্রেম করে বিয়ে করে প্রেমিকার মামার দায়ের করা মামলায় প্রেমিক জেলে গেলেও প্রেমিকা নিরাপদ হেফাজতে রয়েছে। জানাগেছে, উপজেলার ডাবুয়া ইউনিয়নের হিংগলা এলাকার আবদুল মাবুদ খোকনের পুত্র জাবেদ ফারুকের রাউজান পৌর এলাকার ছত্র পাড়া এলাকার শামশুল আলম সওদাগরের কন্যা জান্নাতুল ফাহিমা এ্যনির সাথে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। দুইজনের প্রেমের সর্ম্পর্ক প্রেমিকা এ্যাানির পরিবার মেনে না নেওয়াায় তারা দুইজনেই পালিয়ে গিয়ে গোপনে গত ২০১৪ সালের ১৯ মে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে বিবাহের হলফনামামুলে একে অপরকে বিবাহ করেন । একই তারিখে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আলকরন ওয়ার্ডের নিকাহ রেজিষ্টার কাজী মৌলনা জামাল উদ্দিনের কাছে দশ লক্ষ টাকা দেন মোহর ধায্য করে নিকাহ নামা রেজিষ্টারী করেন । দুই প্রেমিকের এই বিবাহ প্রেমিকা  এ্যনির পিতা শামশুল আলম সওদাগর ও তার পরিবারের সদস্যরা মেনে না নেওয়ায় ২২ এপ্রিল প্রেমিক জাবেদ এ্যনিকে নিয়ে তার পিতার বাড়ী রাউজানের ডাবুয়া ইউনিয়নের হিংগলা এলাকায় নিয়ে যায় । এ সংবাদ পেয়ে প্রেমিকা জান্নাতুল ফাহিমা এ্যনির মামা রাউজানের উত্তর সর্তা এলাকার মোঃ হাফিজুর রহমানের পুত্র আসলাম উদ্দিন এ্যনিকে রাউজানের কুন্ডেশ্বরী এলাকা থেকে প্রেমিক জাবেদ ফারুক তার সহযোগীরা জোর পুর্বক ধরে নিয়েছে বলে দাবী করে গত ৭ মে রাউজান থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০(সংশোধিত-০৩) এর ৭/৩০ ধারায় মামলা করেন । মামলাটি তদন্তকারী কর্মকর্তা রাউজান থানার এস আই খলিল ভিকটিম এ্যনিকে উদ্ধার ও জাবেদকে গ্রেফতার প্রচেষ্টায় অভিযান চালালে গত ১৮ মে প্রেমিক জাবেদ ফারুক ও প্রেমিকা জান্নাতুল ফাহিমা ্এ্যাি আদালতে আত্মসর্মপন করেন । আদালতে প্রেমিক জান্নাতুল ফাহিমা এ্যানি জবানব›ন্দীতে উল্লেখ করেন জাবেদ ফারুকের সাথে তার এক বৎসর পুর্বে বিবাহ হয়েছে । এ্যনি এস এস সি পরিক্ষা দিয়েছেন তবে এখনো ফলাফল বের হয়নি । এ্যানি স্বামীকে নিয়ে সুখে রয়েছে বলে আদালতে জবানবন্দ্বীতে উল্লেখ করেন । স্বামীর সাখে সংসার করেন। মা বাবা জানতোনা আমি মাঝে মাঝে শ্বাশুর বাড়ীতে স্বামীর সাখে থাকার কথা । মা বাবা আমাদের বিয়ে মেনে নিচ্ছেনা । আমি নিজ ইচ্ছায় স্বামীর সাথে গেছিলাম । আমার ইচ্ছার বিরুন্ধে অনত্র বিয়ে ঠিক করায় আমি স্বামীর সাথে পালিয়ে যেতে বাধ্য হই । আদালত থেকে প্রেমিকা জান্নাতুল ফাহিমা এ্যানির পিতা শাশশুল আলম সওদাগর তার কন্যাকে জিম্মায় নিতে চাইলে আদালতে দেওয়া এ্যনির জবানবন্দ্বী ও বিবাহের দলিল পত্র বিবেচনা করে প্রেমিক জাবেদ ফারুককে জেল হাজতে ও প্রেমিকা জান্নাতুল ফাহিমা এ্যনিকে হাটজাজারী ফরহাদাবাদে সেভ হোমে নিরাপদ হেফাজতে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ প্রদান কারেন আদালত । আদঅলতের নির্দেশক্রমে প্রেমিকা জান্নাতুল ফাহিমা এ্যানিকে হাটাজারীর ফরহাদাবাদ সেভ হোমে নিরাপদ হেফাজতে নিয়ে যায় পুলিশ । প্রেমিক জাবেদ ফারুককে চট্টগ্রাম জেলা কারাগারে প্রেরণ করেন পুলিশ । আদালতের নির্দের্শে জান্নাতুল ফাহিমা এ্যনির বয়স পরিক্ষার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয় বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাউজান থানার এস আই খলিল জানান । নির্দেশের কপিটি পাওয়া না যাওয়ায় পরিক্ষা এখনো পরিক্ষা করা হয়নি বলে জানান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই খলিল । বিবাহের নিকাহনামা ও হলফনামায়, রাউজান পৌরসভার কাছে থেকে জম্ম নিবন্দ্বন সনদে জান্নাতুল ফাহিমা এ্যনির জম্ম তারিখ ১৯৯৬ সালের ১৪ এপ্রিল লেখা রয়েছে । জাবেদ ফারুকের জম্ম তারিখ ১৯৯৩ সালের ১০ ফেব্র“য়ারী লেখা রয়েছে ।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত