টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

চট্টগ্রামে স্বামী হত্যার দায়ে স্ত্রীর যাবজ্জীবন

চট্টগ্রাম, ২০ মে (সিটিজি টাইমস) :: চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলার সারোয়াতলী এলাকায় মনসুর আহম্মদ হত্যা মামলার প্রধান আসামি স্ত্রী সালেহা বেগম মুন্নিসহ অপর দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এ মামলার আরেক আসামি রনি দত্তকে সাতবছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

প্রথম অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ মো. রকিবুল ইসলামের আদালত বুধবার দুপুরে এ রায় দেন। যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন মো. জাহিদ ও মো. জসিম। তবে তাদের মধ্যে মুন্নি ও জসিম কারাগারে এবং জাহিদ ও রনি পলাতক।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (প্রসিকিউশন) কাজী মুত্তাকিম মিনান জানান, আসামিদের মধ্যে মুন্নিসহ মামলার অপর দুই আসামিকে দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারা অনুযায়ী যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। অপর আসামি রনি দত্তকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ১৩ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা শেষে বুধবার এ মামলার রায় ঘোষণা করা হয়।

আদালতের নথি থেকে জানা যায়, ২০১০ সালের ২৯ মার্চ বোয়ালখালীর পশ্চিম সারোয়তলী গ্রামের নুরুল হক চৌধুরীর ছেলে মনসুর আহম্মদকে নিজ বাড়িতে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে স্ত্রী মুন্নিসহ আরও তিনজন। হত্যার পর মাথা বিচ্ছিন্ন করে বস্তাবন্দী অবস্থায় লাশ নদীতে ফেলে দেয় হত্যাকারীরা।

এ ঘটনার পরের দিন নিহতের ভাই এ্যাডভোকেট ফারুক আহম্মদ বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে বোয়ালখালী থানায় মামলা করেন। মামলা তদন্ত করে তদন্তকারী কর্মকর্তা অভিযোগপত্র দাখিল করলে তার ভিত্তিতে ২০১১ সালের ৯ জানুয়ারি অভিযুক্ত চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ গঠন করা হয়।

মতামত