টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মেঘালয়ের হাসপাতালে সালাহ উদ্দিন

চট্টগ্রাম, ১২ মে এপ্রিল (সিটিজি টাইমস) :: বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদ ভারতের মেঘালয়ের একটি হাসপাতালে অবস্থান করছেন। পাসপোর্টসহ যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে দেশে আনার জন্য স্ত্রী হাসিনা আহমেদকে বলেছেন তিনি।

মঙ্গলবার দুপুরে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার গুলশানের বাসভবনে সাক্ষাৎ শেষে হাসিনা আহমেদ এসব তথ্য দেন।

স্বামীর সঙ্গে টেলিফোনে আলাপের সত্যতা নিশ্চিত করে তিনি বলেন, ‘মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে ভারতের মেঘালয়ের একটি হাসপাতাল থেকে বাসায় ফোন আসে। ওই ফোনের অপরপ্রান্ত থেকে সালাহ উদ্দিন আহমেদ আমার সঙ্গে কথা বলেন।’

টেলিফোনে আলাপের বিষয়ে হাসিনা আহমেদ বিস্তারিত বলতে রাজি হননি। তবে তিনি বলেন, ‘সালাহ উদ্দিন আহমেদ কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা বলেছেন। আপনাদের সেটি পরে জানাব।’

এদিকে, সালাহ উদ্দিন আহমেদের ভাগ্নে পরিচয়ে একজন আরটিএনএন- কে বলেন, ‘সকালে মামা (সালাহ উদ্দিন আহমেদ) মেঘালয় থেকে বাসায় মামীকে (হাসিনা আহমেদ) ফোন করেন।’

তিনি বলেন, ‘ফোনে মামা মামীকে বলেছেন- আমি মেঘালয়ের একটি হাসাপাতালে আছি। তোমরা আমার পাসপোর্ট নিয়ে আস এবং যেভাবে আমাকে নেয়া দরকার, সেসব প্রক্রিয়া অনুসরণ করে নিয়ে যাও।’

এর আগে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে হাসিনা আহমেদ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। প্রায় এক ঘণ্টা ধরে খালেদা জিয়ার বাসভবনে তিনি অবস্থান করেন।

খালেদা জিয়ার বাসা থেকে বের হওয়ার পর হাসিনা আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘তার স্বামী সালাহ উদ্দিন আহমেদ ভারতের কোনো এক স্থান থেকে টেলিফোন করে কথা বলেছেন। আর সেটি অবহিত করতেই তিনি বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে দেখা করেছেন।’

তবে ঠিক কোন স্থান থেকে সালাহ উদ্দিন আহমেদ ফোন করেছেন এবং তাদের মধ্যে কি কথা হয়েছে, তা স্পষ্ট করেননি হাসিনা আহমেদ।

গুলশান থেকে বের হয়ে তিনি সরাসরি বাসায় ফেরেন এবং আরো কিছু পরে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষযে বিস্তারিত জানাবেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত ১০ মার্চ রাতে সালাহ উদ্দিন আহমেদকে উত্তরার একটি বাসা থেকে সাদা পোশাকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায় বলে তার স্ত্রী হাসিনা আহমেদ দাবি করেন। বিএনপির পক্ষ থেকেও একই দাবি জানানো হয়। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিষয়টি অস্বীকার করে আসছে।

মতামত