টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

ইভটিজারদের জুতাপেটা করো : মণ্ডল

sচট্টগ্রাম, ১০মে এপ্রিল (সিটিজি টাইমস) :: ইভটিজারদের প্রতিরোধে জুতাপেটা করার পরামর্শ দিয়েছেন সিএমপি কমিশনার আব্দুল জলিল মণ্ডল।

রোববার বেলা ১২টার দিকে নগরীর দামপাড়ায় বাংলাদেশ মহিলা সমিতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের (বাওয়া স্কুল) ছাত্রীদের নিয়ে ইভটিজিং প্রতিরোধ বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ পরামর্শ দেন।

ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে আব্দুল জলিল মণ্ডল বলেন, ‘ইভটিজিংয়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ করতে হবে। কেউ যদি ইভটিজিং করতে আসে তাদের জুতাপিটা করবে। আমরা তোমাদের সাথে আছি।’

তিনি অরো বলেন, ‘স্কুলে আসা যাওয়ার পথে, গলির মুখে কেউ যদি তোমার গতিরোধ করে অশোভন আচরণ ও কথাবার্তা বলে সাহসীকতার সাথে তার প্রতিবাদ করতে হবে।’

পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘আজ থেকে বখাটেদের বিরুদ্ধে সাহস করে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। তোমাদের ভয় পাবার কোন কারণ নেই। পুলিশ তোমাদের পাশে থাকবে সব সময়। অনেকের পারিবারিক ও সামাজিক সমস্যা থাকতে পারে। সেজন্য আমাদের সহযোগিতা চাইলে পরিচয় গোপন রেখে আমরা এসব বখাটেদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো।’

মতবিনিময় সভায় অতিরিক্ত কমিশনার বনজ কুমার মজুমদার ইভটিজিং প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বিশদ আলোচনায় করেন।

তিনি বলেন, ‘তিনটি চুক্তিতে আমরা আপনাদের সাহায্য করতে চাই। চুক্তি গুলো হলে , প্রথমত বখাটেদের উৎপাতের শিকার যে কেউ অভিযোগ করলে সে অভিযোগের কথা নিপীড়নকারীকে কখনোই জানতে দেয়া হবেনা। দ্বিতীয়টি হচ্ছে তোমরা না চাইলে তাহলে স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও অভিভাবকরা কোনদিন বিষয়টি জানানো হবেনা। তৃতীয়টি হচ্ছে অভিযোগের কারনে তোমাকে কখনো থানা ও আদালতে যেতে হবে না।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, ‘তোমরা আমার মেয়ে, আমি তোমাদের অভিভাবক। যে কোনো যন্ত্রণা কষ্ট তোমরা আমার সাথে শেয়ার করতে পারো। আমি কথা দিচ্ছি তোমরা না চাইলে অভিযোগের বিষয়টি পুলিশ প্রকাশ করবে না।’

বনজ কুমার মজুমদার জানান, নিপীড়নের শিকার যে কোন ছাত্রী মোবাইল থেকে ৩৭৩ লিখে একটি এসএমএস দিলে হবে। তাৎক্ষনিক ভাবে ওই ছাত্রীর নম্বরে নগর পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তাদের একজন ফোন দিয়ে তার অভিযোগ লিপিবদ্ধ করবেন। পরে অভিযুক্ত বখাটের বিরুদ্ধে তাৎক্ষনিক অভিযানসহ আইনগত ব্যবস্থা নেবে পুলিশ। অভিযোগকারীর পরিচয় সম্পূর্ণ গোপন রাখা হবে। মোবাইল নাম্বারটি হলো- ০১৮৪১৩৭৩২৩৭ ও এসএমএস পাঠানোর নাম্বার ৩৭৩ ।

প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে ইভটিজারদের প্রতিরোধ করার অঙ্গিকার করে বাওয়া স্কুলের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী কারিশমা কবির ঐশি বলেন, ‘আমাদের মনে রাখতে হবে আমরা শুধু নারী নই-আমরা মানুষ। মাথানত করে সহ্য করার সময় আর নেই, আমাদের প্রতিবাদ করতে হবে। আমরা নারীরা নাকে শক্তিতে পরিণত করতে হবে।’

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, নগর পুলিশের উপ কমিশনার কামরুল আমীন, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মিজানুর রহমান, সিনিয়র সহকারী কমিশনার শাহ মোহাম্মম আব্দুর রউফ এবং বাওয়া স্কুলের প্রধান শিক্ষক আনোয়ারা বেগমমহ স্কুলের কয়েকশ শিক্ষার্থী।

মতামত