টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

বন্ধুত্বের বলি: ফটিকছড়িতে বান্ধবীর পর কলেজ ছাত্র জাবেদের আত্মহত্যা

মাহফুজ আনাম
ফটিকছড়ি প্রতিনিধি 

fatickchari(death)newsচট্টগ্রাম, ০৫ মে এপ্রিল (সিটিজি টাইমস): বন্ধুত্বের বলি হলেন ফটিকছড়ি কলেজের মেধাবী ছাত্র জাবেদ হোসেন (১৯)। দীর্ঘদিনের বান্ধবীর আত্মহত্যার পর নিজের উপর মিথ্যা অপবাদ সইতে না পেরে রোববার সন্ধ্যায় বিষপানে তিনিও বান্ধবীর পথ অনুসরন করলেন। রোববার রাত সাড়ে নয়টায় চমেক হাসপাতালে তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।নিহত জাবেদ চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার সুন্দরপুর ছোট ছিলোনিয়া গ্রামের মোহাম্মদ চৌধুরী বাড়ির প্রবাসী দেলোয়ার হোসেনের একমাত্র পুত্র। জাবেদ ফটিকছড়ি কলেজের চলতি এইচ এস সি পরীক্ষার পরীক্ষার্থী।

তার আত্মহত্যার রহস্য উদঘাটনে জানা যায়, জাবেদের পরিবার উপজেলা সদরের তেজন্দ্র স্কায়ার সংলগ্ন একটি ভবনে ভাড়া বাসায় গত সাত বছর পূর্ব থেকে বসবাস করে আসছেন। একই ভবনে ভাড়ায় থাকতেন রাঙ্গামাটিয়া চৌমহনী এলাকার বদিউল আলম(প্রকাশ এজেন্সি বদির) পরিবার। সেই সূত্রে বদির কন্যা নিগার সুলতানা নিকার সাথে জাবেদের বন্ধুত্বের সম্পর্ক হয়। বিগত সাত বছরের বন্ধুত্বে আবদ্ধ থাকা জাবেদ-নিকা ফটিকছড়ি কলেজে একই শ্রেনীতে পড়ালেখা করছিল।

এরিমধ্যে, নিকার সাথে একটি বিবাহ অনুষ্ঠানে পরিচয় হয় মেয়র ইসমাইল হোসেনের বাড়ির ‘অনিক’ নামক এক ছেলের সাথে। তার সাথে নিকার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেম দেওয়ার নেওয়ার এক পর্যায়ে নিকা বুঝতে পারে অনিক একটি বকাটে ছেলে। তখনই তাকে এড়িয়ে চলতে থাকে। এক পর্যায়ে তাদের সম্পর্ক ভেঙ্গে যায়। তখনই সৃষ্টি হয় নতুন জামেলা। তাদের এই সম্পর্ক ভাঙ্গার পেছনে জাবেদের হাত রয়েছে এবং জাবেদের সাথে নিকার প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে ধারণা করে জাবেদকে অনিক সাঙ্গপাঙ্গ নিয়ে বেদড়ক পিঠিয়ে আহত করে।

এ নিয়ে কলেজের বড় ভাইদের বিচার দেন জাবেদ। বিষয়টি নিয়ে বেঠকে বসেন ফটিকছড়ি কলেজের সিনিয়র কয়েকজন ছাত্র। সেখানে জাবেদ দাবী করেন নিকার সাথে তার শুধুই বন্ধুত্ব। অন্যদিকে একই বৈঠকে বকাটে অনিক দাবী করেন নিকার সাথে জাবেদের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে তাই তাকে পাত্তা দিচ্ছে না নিকা। বিষয়টি মিমাংসাধীন ছিল। এরিমধ্যে অনিক, নিকা ও তার পরিবারকে বিভিন্নভাবে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে। এনিয়ে নিজ পরিবারের চাপ, অপরদিকে অনিকের হুমকি ধমকির কারণে নিকা বিগত ৪৩ দিন পূর্বে নিজ ঘরে শরীরে কেরোসিন ডেলে আগুন লাগিয়ে দেন। মুমূর্ষ অবস্থায় চারদিন পর চমেক হাসপাতালে তিনি মারা যান।

জাবেদের ঘনিষ্ট বন্ধু আনোয়ার জনি বলেন, নিকার সাথে জাবেদের শুধুই বন্ধুত্ব ছিল। নিকার মৃত্যুর পূর্বে জাবেদসহ আমি নিকাকে হাসপাতালে দেখতে যাই। নিকার এমন মৃত্যুর পর জাবেদ মানসিকভাবে খুবই ভেঙ্গে পড়ে। তার উপর নিকার মৃত্যুর জন্য জাবেদ দায়ী বলে অনেকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আসছিল। তার এই যন্ত্রনা থেকে কয়েকদিন আগেও বিষপানে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করে সে। সে চলতি এইচ.এস সির মাত্র তিনটি পরীক্ষা দিয়ে পরীক্ষা দেওয়াও বন্ধ করে দেয়। সর্বশেষ তার বিষপানের দশমিনিট পূর্বেও আমার সাথে কথা বলেছিল। তবে, এধরণের কিছু করতে যাচ্ছে তা আমাকে জানায়নি।

জনি আরো বলেন, জাবেদ আমাকে বলেছিল অনিকের বিচার আল্লাহ করবে। তাকে যেন অন্যকেউ কিছু না করে।

এ নিয়ে বকাটে অনিকের সাথে বার বার যোগাযোগ করতে চাইলেও তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মফিজ উদ্দিন বলেন, এ ব্যাপারে থানায় কোন পক্ষ কোন প্রকার অভিযোগ নিয়ে করেনি।

মতামত