টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সোনাদিয়া চ্যানেলে অপহৃত ৫০ মাঝিমাল্লা মুক্তিপণে ফিরেছে

ইমাম খাইর, কক্সবাজার ব্যুরো:
বঙ্গোপসাগরের সোনাদিয়া চ্যানেল থেকে অপহৃত ৫০ জন মাঝি-মাল্লাকে মুক্তিপনের বিনিময়ে ছেড়ে দিয়েছে জলদস্যুরা। রবিবার বিকালে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। তবে ওই সময় অপহৃত আরো অন্তত দশ মাঝিমাল্লার কোন খোঁজ মেলেনি। গত শনিবার এসব মাঝিমাল্লা অপহরণের শিকার হয়। কক্সবাজার জেলা বোট মালিক সমিতির সভাপতি মুজিবুর রহমান সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, শনিবার বঙ্গোপসাগরের টেকনাফ থেকে মহেশখালীর বিভিন্ন পয়েন্টে দাফায় হামলা চালিয়ে লুটপাট শেষে অপহরণ করা হয় ফিশিং ট্রলার মালিকসহ অন্তত ৬০ জন জেলে ও মাঝিমাল্লা। পরে জলদস্যুরা বোটের মালিকদের ফোন করে মুক্তিপণ দাবী করলে বোট মালিকরা তাদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়টি শুরু করে। ফিরে আসা লোকদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
কক্সবাজার ফিশিং বোট মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমদ জানান, শনিবার মাছ ধরতে গিয়ে  বিভিন্ন পয়েন্টে ৬০ মাঝিমাল্লাসহ ৬টি ট্রলার অপহরণের শিকার হয়। লুট করা হয় ট্রলারের মালামাল। অপহরণ ও দস্যুতার শিকার ট্রলার গুলোর মধ্য রয়েছে-কক্সবাজার শহরের এন্ডারসন সড়কের মোহাম্মদ কাইয়ুমের সাওদাগরের মালিকানাধীন এফবি রিসাত ও এফবি রফিকুল ইসলাম, রুমালিয়ারছড়া এলাকার জয়নাল আবেদীন খাজার মালিকানাধীন এফবি জুবাইদা, পেশকার পাড়ার ফজল করিমের মালিকানাধীন এফবি হাসান ও নুরুল আলমের মালিকানাধীন এফবি মায়ের দোয়া, চকরিয়ার সুকুমার জলদাসের মালিকানাধীন এফবি জগদীশ।
এদিকে দস্যুতার এ ঘটনায় এফবি জগদীশের মাঝি ও মালিক সুকুমার জলদাস অপহরণ করে তার কাছে জলদস্যুরা  ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করার কথা জানিয়েছিলেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত