টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

আপাতত হরতাল-অবরোধ দিচ্ছে না বিএনপি

bnp-flagচট্টগ্রাম, ০৩ মে এপ্রিল (সিটিজি টাইমস):  সিটি করপোরেশন নির্বাচন বর্জন করলেও আপাতত হরতাল-অবরোধের মতো কর্মসূচিতে না যাওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে বিএনপি। শনিবার বিবিসি অায়োজিত বাংলাদেশ সংলাপে দলটির জ্যেষ্ঠ নেতা আ স ম হান্নান শাহ এ ইঙ্গিত দেন। তিনি মনে করেন, সিটি নির্বাচন বর্জন সত্ত্বেও এখানে বিএনপি নৈতিকভাবে বিজয়ী হয়েছে।

হরতাল-অবরোধের মতো ধ্বংসাত্মক কর্মসূচি থেকে সরে অাসা প্রসঙ্গে হান্নান শাহ বলেন, ‘এতকিছুর পরেও আমরা কিন্তু রাস্তায় যাইনি। আমাদের বলা হয় আমরা জঙ্গি, এটা করি, ওটা করি – সেটা কিন্তু এবার হয় নাই।’ তবে হরতাল বা অবরোধের মতো কর্মসূচি আসবে কিনা সেটি ভবিষ্যত পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে বলে জানান তিনি।

এদিকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত আওয়ামী লীগ নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, বর্জনের পরেও বিএনপি যে পরিমাণ ভোট পেয়েছে সেটি দলটির জন্য উৎসাহব্যাঞ্জক হতে পারে।

তিনি বলেন, ‘বিএনপিকে তার রাজনীতি বদলাতে হবে। জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতির জন্য মানুষের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে তাদের।’

অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া অন্য আলোচকরাও মনে করেন, সিটি নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে রাজনীতিতে যেন সহিংসতা ফিরে না আসে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ব্যাপক জালিয়াতির অভিযোগ থাকলেও বিএনপির নির্বাচন বর্জনকে অনেকেই হতাশাজনক বলে বর্ণনা করেছেন।

অনুষ্ঠানে সদ্য শেষ হওয়া সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মানুষ ভোটের অধিকার ফিরে পেয়েছে কিনা সেটি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন একজন দর্শক। বিষয়টি নিয়ে সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এবং হান্নান শাহের মধ্যে বিতর্কও হয়। বিএনপির ভোট বর্জনকে সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ‘আত্নসমর্পণ’ বলে বর্ণনা করেন।

সুরঞ্জিত বলেন, ‘খালেদা জিয়া বললেন যে নীরব বিপ্লব করতে হবে। উনি সেনা নামিয়ে দিলেন। এরপরে দেখা যায় সেনাপতি ১০টার সময় গিয়ে আত্মসমর্পণ করল। এটা যুদ্ধ হয়?’

জবাবে হান্নান শাহ বলেন, ‘বিএনপি ভোট বর্জন করলেও এই নির্বাচনে তাদের নৈতিক জয় হয়েছে। কারণ প্রহসন হয়েছে এ নির্বাচনে। এবার সবাই দেখেছেন, মানুষের দাবি হলো এই নির্বাচনের ফল বাতিল করে আবার সুষ্ঠু ও সবার কাছে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেওয়া।’

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত