টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

সাকার ভাইয়ের জানাজায় হামলা, আহত ২৫

চট্টগ্রাম, ৩০ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস):: বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ছোট ভাই সাইফুদ্দিন কাদের চৌধুরীর লাশবাহী গাড়িতে হামলা ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুজন গুলিবিদ্ধসহ ২৫ জন আহত হয়েছেন।

গতকাল বুধবার ভোর ৬টায় রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৫ বছর। দীর্ঘদীন যাবৎ তিনি লিভার ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন।

সাইফুদ্দিন কাদের চৌধুরী বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ছোট ভাই এবং কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বড় ভাই।

বুধবার বা’দ আছর গুলশান আজাদ মসজিদে তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় চট্টগ্রামে। সেখানে আজ বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় নামাজে জানাজার সময় এই হামলার ঘটনা ঘাটল। ওই জানাজার পর সাইফুদ্দিন কাদের চৌধুরীর মরদেহ রাউজানের গহিরা গ্রামের নিজবাড়িতে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করার কথা ছিল।

জেলা পুলিশ সুপার একেএম হাফিজ আক্তার জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাউজানের গহিরা ডিগ্রি কলেজ মাঠে জানাযায় অংশ নিতে যান স্থানীয় আওয়ামী লীগ দলীয় সাংসদ ফজলে করিম চৌধুরী যিনি প্রয়াতের চাচাত ভাই।

পারিবারিক ও রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে ফজলে করিমকে জানাযায় অংশ নিতে না দিয়ে দুর্ব্যবহার করে বের করে দেয়া হয়।

এ খবর ছড়িয়ে পড়ার পর দলে দলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সেখানে উপস্থিত হন।

এক পর্যায়ে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের মধ্যে পাল্টাপাল্টি গোলাগুলি শুরু হয়।

প্রায় আধাঘণ্টা ধরে গোলাগুলির পর পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে বলে দাবি করেছেন পুলিশ সুপার।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) নাঈমুল হাসান  বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এতে দু’পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে বিস্তারিত জানানো যাচ্ছেনা।’

উত্তর জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ন সম্পাদক নুরুল আলম নুরু  বলেন, ‘জানাজায় অংশ নেওয়াকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ-যুবলীগ আমাদের পৌর সভার মেয়রকে মেরে পুলিশকে দিয়েছে। পরে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর ব্যাপক গুলি ছোঁড়েছে।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন ঘটনাস্থল থেকে জানান, মূলত রাউজানের সাংসদ ফললে করিম চৌধুরীকে সাইফুদ্দীন কাদের চৌধুরীর মরদেহ স্পর্শ করতে না দেওয়ার জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে।

মতামত