টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

খালেদা জিয়া এটি বলতে পারেন কি?

khale_bnpচট্টগ্রাম, ২৭ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস):: সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার একটি বক্তব্যকে ঘিরে সারাদেশে সামলোচনার ঝড় বইছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের বক্তব্যটি নৈতিকতাবিরোধী, অন্তত তাঁর মুখে এই বক্তব্যটি মানায় না।

রবিবার বিকালে খালেদা জিয়া তাঁর নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ভোটারদের ‍উদ্দেশ্য করে বলেছেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা টাকা ছড়াচ্ছেন এবং এ টাকা আপনাদেরই।টাকা নেবেন কিন্তু ভোট বিক্রি করবেন না।

তাঁর এই বক্তব্যের পর প্রশ্ন উঠেছে-খালেদার মতো একজন ব্যক্তিত্ব নৈতিকতাবিরোধী এ বক্তব্য দিতে পারেন কি না?

এ ধরণের বক্তব্য এর আগে একাধিক বার উচ্চারিত হলেও যিনি তিন তিন বার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তাঁর মুখ এ ধরণের অবৈধ লেনদেনের কথা সমাজকে কলুষিত করবে কি না প্রশ্ন সেখানেই।

বলাবলি হচ্ছে- জাতি তো তাদের মতো ব্যক্তিদের কাছ থেকে নীতি নৈতিকতা শেখবেন। তাদের মুখে থেকে এ ধরণের বক্তব্য আসা কতটা যৌক্তিক।

খালেদা জিয়ার এমন বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)-এর সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার  বলেন, “ভোটের জন্য টাকা নেয়া এবং টাকা নিতে বলা কোনোটাই গ্রহণযোগ্য নয়। আশা করি আমাদের নেতা-নেত্রীরা নৈতিকতা শেখাবেন।”

তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, “তারা একদিকে যেমন টাকা না নেয়ার জন্য বলবেন। আবার ভোটের আগে টাকা ছড়ানো বন্ধের জন্যও বলবেন।”

আর ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “টাকার বিনিময়ে ভোট বিক্রি ঈমান বিক্রির সমান-সত্য কথা। তবে টাকা নেয়াটাও যে ঈমানের লঙ্ঘন বিএনপি চেয়ারপারসন তা কিন্তু বলেননি।”

টাকা ছড়ানো নিয়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য ঠিক হলেও একে ঢালাও বক্তব্য বলেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক।

রবিবার দুপুরে নিজের গুলশানের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়া বলেন, “আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা অবাধে টাকা ছড়াচ্ছে। নিম্নবিত্ত ও বস্তি এলাকায় গরিব মানুষের ভোট কেনার অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। ”

সবাইকে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “মনে রাখবেন দেশের সম্পদ লুটপাট করে এবং আপনাদের রক্ত শুষে এরা টাকার পাহাড় গড়েছে। কাজেই এরা যে টাকা বিলাচ্ছে, সেটা আপনাদেরই টাকা। ওদের কাছ থেকে এ টাকা নিলেও ভোট বিক্রি করবেন না। টাকা নেবেন কিন্তু বিবেক অনুযায়ী ভোট দেবেন। কারণ, ভোট বিক্রি আর ঈমান বিক্রি একই কথা ।”

এদিকে খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলনের পর গণভবনে ইন্দোনেশিয়া সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। খালেদার জিয়ার বক্তব্যের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “অর্থ নেওয়াটা উনি (খালেদা জিয়া) ভালো বোঝেন, অর্থ নেওয়া ও বেইমানি করা তাদের স্বভাব। বিএনপি যখনই ক্ষমতায় এসেছে তখনই দেশকে নরক বানিয়েছে।”

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের রাজনীতিতে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কালো টাকার ছড়াছড়ির খবর নতুন নয়। সাধারণত নির্বাচনের আগের রাতে এই অপতৎপরতা বেশি দেখা যায়।

সম্প্রতি প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে বৈঠকে চট্টগ্রামের প্রার্থীরা নির্বাচনের আগের রাতকে ‘চাঁদরাত’ আখ্যা দিয়ে ওই রাতে ভোট কেনাবেচা বন্ধে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য বলেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত