টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

জব্বারের বলীখেলা উপলক্ষে বৈশাখী মেলা শুরু

mচট্টগ্রাম, ২৪ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস): আজ শুক্রবার শুরু হয়েছে  শতবর্ষ প্রাচীন ঐতিহ্য চট্টগ্রামের আব্দুল জব্বারের বলীখেলা উপলক্ষে নগরীর লালদীঘি ময়দানে তিন দিনব্যাপী বৈশাখী মেলা ) বর্তমানে দেশের সবচেয়ে বড় লোকজ উৎসব হিসেবে জব্বার মিয়ার বলীখেলা ও বৈশাখী মেলাকে চিহ্নিত করা হয়। বলীখেলাকে ঘিরে লালদীঘির ময়দানে নাগর দোলা, সার্কাস ও বিচিত্রানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

লালদীঘির মাঠসহ আশপাশে আন্দরকিল্লা, সিনেমা প্যালেস এলাকায় রকমারি পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছেন দোকানিরা।

দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা ব্যবসায়ীরা নানান গ্রামীণ পণ্যের সমাহারে এরই মধ্যে জমিয়ে তুলেছেন মেলা। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষ কিনতে মেলায় আসছেন গৃহিণী-তরুণীরা।হাতপাখা, শীতল পাটি, মাটির কলস থেকে শুরু করে চুড়ি ফিতা, রঙিন সুতা, হাতের কাঁকন, নাকের নোলক, মাটির ব্যাংক, ঝাড়ু, খেলনা, ঢোল, বাঁশি, বাঁশ বেতের নানা তৈজসপত্র, কাঠের পুতুল, নকশী কাঁথা, মাছ ধরার চাঁই, বেতের তৈরি চালুনি, তৈজসপত্র, মাটির তৈরি পুতুল, মাটির তৈরি খেলনা, ফুলদানি, তালপাখা, টব, হাঁড়ি-পাতিল, কুলা, গাছের চারা, দা-বটি, বৈশাখী ফল, খাঁচার পাখি, সবকিছুই পাওয়া যাচ্ছে মেলায়। এখানে যেমন রয়েছে ঘর সাজাবার উপকরণ, তেমনি আছে নিত্য ব্যবহার্য সামগ্রী। এছাড়া মুড়ি মুড়কি, লাড্ডুর মতো রসনা তৃপ্তির নানা উপকরণতো রয়েছেই।

শনিবার (২৫ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে তিনটায় একই স্থানে অনুষ্ঠিত হবে ঐতিহ্যবাহী বলীখেলা। বলীখেলা ও বৈশাখী মেলা উদযাপন কমিটির আয়োজনে এতে সহযোগিতায় থাকছে বাংলালিংক।

১৯০৯ সালে চট্টগ্রাম শহরের বদরপতি এলাকার ব্যবসায়ী আবদুল জব্বার সওদাগর এক কুস্তি প্রতিযোগিতার আয়োজন করেন। ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন বেগবান করতেই তিনি এ খেলার সূচনা করেছিলেন বলে জানা যায়। তার মৃত্যুর পরে এ খেলা পরিচিতি পায় জব্বারের বলীখেলা নামে। এ বছর বসছে জব্বারের বলীখেলার ১০৬তম আসর। প্রতিবছর ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের মানুষ একত্রিত হন অন্যতম এ সামজিক উৎসবে।

মতামত