টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

প্রচারণায় নামতে না পারার অভিযোগ কাউন্সিলর প্রার্থী মাহফুজ

চট্টগ্রাম, ২০ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস): সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহণের আর মাত্র আট দিন বাকি।

চট্টগ্রামের ১৩নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডের ২০দলীয় জোট সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী মাহফুজুল আলম প্রতিপক্ষের হামলায় এখনো নির্বাচনী প্রচারনা শুরু করতে পারেননি। তার প্রচারণায় প্রতিনিয়ত হামলা ও বাধা দিচ্ছে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত মোহাম্মদ হোসেন হীরণের কর্মীরা। তাদের হামলায় এই পর্যন্ত আহত হয়েছে মাহফুজের ১৫জন কর্মী। ভন্ডুল হয়ে গেছে একাধিক নির্বাচনী প্রচারণা। এখনো ব্যানার পোস্টার লাগাতে পারেনি তারা।

গত ১০এপ্রিল নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দ দেয়ার পরপরই ওয়ার্ডের আমবাগান এলাকায় মাহফুজের প্রচার মাইকে হামলা চালায় হিরণের লোকজন। এতে প্রচার কর্মী ফারুকসহ তিনজন আহত হয়। ভেঙ্গে দেয়া হয় মাইক ও সিএনজি অটোরিকশা।এরপর গত ১৫এপ্রিল পশ্চিম খুলশী ১নং রোডে নির্বাচনী গণসংযোগে হামলা চালিয়ে ছিনিয়ে নেয়া হয় হ্যান্ডবিল। ১৬ এপ্রিল ওয়ারল্যান ৫নং লাইনে মাহফুজের স্ত্রী খায়রুন জান্নাতের নেতৃত্বে মহিলাদের গণসংযোগে হামলা করে হিরণের অনুসারীরা। এতে মাহফুজর স্ত্রীসহ ৫মহিলা আহত হয়।

এই হামলার ব্যাপারে থানায় ও নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করায় ক্ষুব্ধ হয়ে হিরণের লোকজন ঐ দিন সন্ধ্যায় মাহফুজের বাসায় হামলা চালায়।

গতকাল রোবববার সকাল ১১টায় এক্সিয়েন কলোনী ও হলিক্রিস্টে এলাকায় ব্যানার ও পোস্টর লাগাতে গেলে হিরণ কর্মীরা মারধর করে ব্যানার , পোস্টার ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয় মাহফুজরে কর্মীদের কাছ থেকে।

এ সকল ঘটনায় গত কয়েকদিনে নির্বাচন কমিশন ও থানায় চারটি অভিযোগ দায়ের করা হলো কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেনা পুলিশ। উল্টো মাহফুজের ছয় কর্মীকে আটক করে হয়রানি করেছে পুলিশ এমনটি দাবি করেছে মাহফুজুল আলম। এবং নির্বাচনী প্রচারণার সময় পুলিশ প্রোটেকশানের জন্য তিনি কমিশনে আবেদন করেছেন বলেও জানান।

এব্যাপারে জানতে চাইলে রিটার্নিং অফিসার আবদুল বাতেন  জানান, আমরা যে অভিযোগ গুলো পেয়েছি সেগুলোর ব্যাপারে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

এই ব্যাপারে জানতে চাইলে খুলশী থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই আনসার আলী  জানান, মাহফুজুল আলম বিভিন্ন মামলার আসামি হওয়ায় তিনি পলাতক। আর তার পক্ষ থেকে যে অভিযোগ গুলো করা হয়েছে সেগুলো স্বাক্ষীর নাম ও ঠিকানা দেওয়া হয়নি। তাই আমরা ঘটনা তদন্ত করতে কষ্ট হচ্ছে। তবে আমরা বিষয়টি দেখছি।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত