টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

মিরসরাইয়ে কালবৈশাখী ঝড়ে শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, বিদ্যুৎহীন ২৪ ঘন্টা

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই প্রতিনিধি 

চট্টগ্রাম, ০৯ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস)::  মিরসরাইয়ে হঠাৎ ১০ মিনিটের ঘূর্ণিঝড়ে শতাধিক ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। এতে উপজেলার হিঙ্গুলী, করেরহাট, ইছাখালী, মিরসরাই সদর, মায়ানী, শাহেরখালী, খৈয়াছরা, ওয়াহেদপুরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রায় শতাধিক ঘর বাড়ি বিধ্বস্ত হয়। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় ইছাখালী ইউনিয়ন। ওই ইউনিয়নের অর্ধশতাধিক ঘর ধ্বসে গেছে বলে স্থানীয়রা জানান।

এদিকে ঝড়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গাছের ডালপালা ভেঙ্গে বিদ্যুৎ তারের উপর পড়ায় মঙ্গলবার রাত থেকে উপজেলাজুড়ে প্রায় ২৪ ঘন্টা ধরে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ হয়ে যায়। বুধবার রাতে উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে বিদ্যুৎ সংযোগ চালু হয়। চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর ডিজিএম  (ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার) সিদ্দিকুর রহমান জানান, উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ৮টি বৈদ্যুতিক খুঁটি পড়ে গেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে প্রায় দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকার কথা স্বীকার করে। বিদ্যুৎ সরবারহ বন্ধ থাকার কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েয়ে এবারের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের। এছাড়া বিদ্যুৎ নির্ভর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোকে অনেক লোকসান গুনতে হয়েছে। বারইয়ারহাট সৈকত কনফেশনারী‘র সত্ত্বাধিকারী মো. মকসুদুল আলম বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যুৎ সরবারহ বন্ধ থাকায় আমাদের প্রতিষ্ঠানের ৫টি ফ্রিজের প্রায় সব মালামাল নষ্ট হয়ে গেছে।

এছাড়াও উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড়ে রবি শষ্য, সবজি ক্ষেত ও পানের বরজের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। উপজেলার ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের মধ্যম ওয়াহেদপুর গ্রামের কৃষক বিকাশ ভৌমিক জানান, কাল বৈশাখী ঝড়ে তার লাউ ক্ষেতের মাচা ভেঙ্গে গেছে। এতে তার প্রায় ৩০ হাজার টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। এছাড়া ওই গ্রামের সাধন চন্দ্র নামের এক পান চাষী জানান, ঝড়ে তার একটি পানের বরজ পড়ে গেছে। এতে তার ক্ষতির পরিমাণ হবে ৫০ হাজার টাকার বেশি।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শাহ আলম জানান, কৃষিতে মোট ক্ষতির সঠিক পরিমাণ এখানো জানা যায়নি।

মতামত