টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

আদালত থেকে কোথায় যাবেন খালেদা?

চট্টগ্রাম, ০৪ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস)::  অবশেষে নিজ রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে বের হওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। দুর্নীতির মামলায় জামিন নিতে রবিবার তিনি আদালতে যাবেন। তার আইনজীবীরা বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

কিন্তু আদালত থেকে খালেদা জিয়া আবারো কার্যালয়ে ফিরবেন, নাকি বাসায় যাবেন এই প্রশ্ন এখন সবার মধ্যে। কেউ বলছেন, আদালত থেকে জামিন নিয়ে তিনি আবার কার্যালয় ফিরবেন। আবার কেউ বলছেন, কার্যালয় নয়, এবার বাসায় ফিরবেন খালেদা জিয়া। যদিও বিষয়টি নিয়ে বিএনপির কেউ মুখ খুলছেন না।

তবে দলীয় সূত্রে জানা যায়, আদালত থেকে তার (খালেদা) কার্যালয় ফেরার সম্ভাবনা বেশি। কারণ এখনো বিএনপি নেতাদের আশঙ্কা- কার্যালয় থেকে বের হওয়ার পর পুলিশ গেটে তালা দিয়ে দেবে।

দলটির কেউ কেউ মনে করছেন, কার্যালয় বন্ধ করে দেয়া হলে তাদের আশঙ্কা ঠিক ছিল বলে প্রচারের সুযোগ পাওয়া যাবে। তবে সরকার কি করে তার ওপর সবকিছু নির্ভর করছে বলে গুলশান কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

গত তিন জানুয়ারি রাতে গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে প্রবেশের পর থেকে সেখানে অবস্থান করছেন খালেদা জিয়া। গত ৮৮ দিন এখানে বসেই তিনি দেশব্যাপী আন্দোলন পরিচালনা করছেন ।

নির্দলীয় সরকারের অধীনে নতুন নির্বাচনের দাবিতে এই টানা কর্মসূচি পালন করে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০দল। দেশের ইতিহাসে এতো দীর্ঘ সময় ধরে হরতাল- অবরোধের কর্মসূচি আগে কখনো হয়নি। যার ফলে শুরুতে কিছুটা উত্তাপ থাকলেও কিছুদিন ধরে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে যায়।

এরমধ্যেই ঢাকাসহ তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হওয়ায় নির্বাচন ও আন্দোলন নিয়ে নতুন চিন্তায় পড়ে বিএনপি। তবে নেতারা বলছেন, সবকিছু বিবেচনায় আন্দোলনের অংশ হিসেবেই সিটি নির্বাচনে অংশ নিয়েছে বিএনপি। এরপর কর্মসূচিও কিছুটা শিথিল করা হয়।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রবিবার সকালের দিকে খালেদা জিয়া দুর্নীতির দুই মামলায় জামিন নিতে রাজধানীর বকশিবাজারের বিশেষ জজ আদালতে যাবেন।

তবে খালেদার আইনজীবীদের পক্ষ থেকে কার্যালয় থেকে আদালতে যাওয়ার পথে নিরাপত্তা নিশ্চিতের শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে।

সূত্রমতে, তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ফলাফল নিজেদের ঘরে তুলতে দলীয় নেতাকর্মীদের সর্বাত্মক চেষ্টা করার নির্দেশ দিয়েছেন খালেদা জিয়া। এজন্য খালেদা জিয়া নিজে আদালত থেকে জামিন নিয়ে দল সমর্থিত প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারণায় অংশ নেয়ার চিন্তা করছেন।

এক্ষেত্রে আদালতে যাওয়াকে কেন্দ্র করে কোনো ধরনের ঝামেলার তৈরি হলে তা বিএনপির পক্ষে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

গত তিন জানুয়ারি রাতে কার্যালয়ে প্রবেশের পর থেকে সেখানে অবস্থান করছেন খালেদা জিয়া। শুরুতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কার্যালয় অবরুদ্ধ করে রাখলেও পরে তা সরিয়ে নেয়া হয়।

এরমধ্যে ৫ জানুয়ারি বিকেলে কার্যালয় থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করলেও পুলিশি বাধায় তিনি বের হতে পারেননি।

তবে এখনো কার্যালয়ে প্রবেশ করতে হলে গেইটে দায়িত্বরত পুলিশের বিশেষ শাখার সদস্যদের খাতায় নাম পরিচয় এন্ট্রি করতে হয়।

শুরু থেকে খালেদা জিয়ার সঙ্গে রয়েছেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, উপদেষ্টা আবদুল কাইয়ুম, খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান সোহেল, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা।

এছাড়া কার্যালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদেরও অনেকে বেশিরভাগ সময় ভেতরে অবস্থান করছেন। খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কর্মীরা পালাবদল করে নিয়মিত দায়িত্ব পালন করছেন।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত