টক অব দ্য চট্টগ্রাম
Ad2

রাঙ্গুনিয়ায় চাঞ্চল্যকর ৪ হত্যাকান্ডের আসামী গ্রেপ্তার, জনমনে স্বস্তি

আব্বাস হোসাইন আফতাব
রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি

unnamed (1)চট্টগ্রাম, ০৪ এপ্রিল (সিটিজি টাইমস):: চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় গত দুই মাসে চাঞ্চল্যকর ৪ হত্যাকান্ডের আসামী গ্রেপ্তার ও খুনের রহস্য উদ্ঘাটন হওয়ায় জনমনে স্বস্তি ফিরে এসেছে। বিগত সময়ের এলাকার আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি চরম অবনতি হওয়ায় এলাকার সাধারন মানুষের মাঝে বিরুপ ধারনা সৃষ্টি হয়। পুলিশ উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে চাঞ্চল্যকর সরফভাটার প্রবাসী মো. ইদ্রিছ হত্যা, ইসলামপুর ইউনিয়নের জিল্লুর রহমান হত্যা, পোমরার যুবলীগ কর্মী জসিম উদ্দিন বাচেক হত্যা, পূর্ব সৈয়দ বাড়ী গ্রামের গৃহবধু নুর আকতার হত্যার মূল আসামীদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। আদালতে হত্যা মামলার আসামীরা জবানবন্দী দিয়ে হত্যাকান্ডের দায়ভার স্বীকার করে। এতে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত মূল আসামীরা সনাক্ত হওয়ায় মামলার বাদীরা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

জানা যায়, সরফভাটা ইউনিয়নের পশ্চিম সরফভাটা গঞ্জম আলী সওদাগরের বাড়ি এলাকার প্রবাসী মো. ইদ্রিছকে গত ৩ ফেব্রূয়ারী গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। ঘটনার পর পুলিশের নিবিড় তদন্তে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে রাঙ্গুনিয়ার থানা ওসি (তদন্ত) চন্দন কুমার চক্রবর্তীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ গত ২৮ মার্চ মহেশখালী থেকে হত্যাকান্ডের প্্রধান আসামী ওসমান বাহিনীর প্রধান মো. ওসমান (২৮)কে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হন।

গত ২১ জানুয়ারী ইসলামপুর ইউনিয়নের জিল্লুর রহমান প্রকাশ জিল্লু ভান্ডারীকে রানীর হাট বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে সন্ত্রাসীরা আরবিএম উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে। গত ১৯ মার্চ একই ইউনিয়নের রইস্যাবিল দূর্গম পাহাড়ী এলাকায় এলাকাবাসীদের সহযোগিতায় পুলিশ মামলার অন্যতম আসামী মো. জসিম উদ্দিন(৩৩)কে গ্রেপ্তার করে।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি যুবলীগ কর্মী জসিম উদ্দিন বাচেককে রাত সাড়ে সাতটায় পোমরা বুড়ির দোকান এলাকার একটি ফার্নিচারের দোকানে বসে আড্ডা দেয়ার সময় প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা তার উপর অতর্কিতে হামলা চালিয়ে লাঠিসোটা দিয়ে বেধড়ক পিঠিয়ে গুরুতর আহত করে। গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায়। পরে পুলিশের সাঁড়াশি অভিযানে ঘটনার সাথে জড়িত অন্যতম আসামী পোমরা হিলাগাজীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী ও যুবলীগ কর্মী খোরশেদ আলম (৩০) ওরফে কানা খুইশ্যাকে কুমিল্লার লাকসাম রেল স্টেশন এলাকা থেকে ও তার চাচাতো ভাই জাহাঙ্গীর আলম (২৬) কে খাগড়াছড়ির দিঘীনালা উপজেলার বাবুছড়া বাজার থেকে আটক করে রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি (তদন্ত) চন্দন কুমার চক্রবর্তীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ।

গত ১৮ ফেব্রুয়ারী পূর্ব সৈয়দবাড়ী গ্রামের নুর আকতার (২২) নামে এক গৃহবধুকে স্বামী ও শাশুড়ী শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে । পরে পুলিশ তাদেরকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসলে গৃহবধুর স্বামী মিলাত হোসেনও শাশুড়ী লায়লা বেগম খুনের ঘটনার বিষয়টি স্বীকার করে।

রাঙ্গুনিয়ার থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবির জানান, হত্যা মামলাগুলো আমরা খুবই গুরুত্বের সাথে দেখি। পুলিশের চৌকস টিম উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে এসব হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত অন্য আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

সিটিজি টাইমসে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

মতামত